২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:১১

প্রেমের জন্য বন্ধু’র হাতে জীবন দিতে হলো

 

মশিউর রহমান, সাভার : আশুলিয়ায় প্রেমের জের ধরে বন্ধুর হাতেই বন্ধু নির্মম ভাবে খুন হয়েছে। আবার নিজেদের বাঁচাতে খুনিরা অপহরনের নাটক সাজায় এই ঘটনাকে। তবে এ ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে।এবং নিখোঁজের ১৫ দিন পর জঙ্গল থেকে সাগর হোসেন নামে তরুনের ক্ষত বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার ভোরে গ্রেপ্তার একজনের তথ্যের ভিত্তিতে আশুলিয়ার আউকপাড়ার একটি জঙ্গল থেকে সাগর হোসেনর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে রাতে ঘটনায় জড়িত মেহেদী হাসান ও শাহা হাসানকে গ্রেপ্তার করে। তবে মুল আসামী সাগর মিয়া পালাতক রয়েছে। গত ২০ আগষ্ট সন্ধ্যার পর থেকে সাগর হোসেন তার এলাকা আউকপাড়া থেকে নিখোঁজ হয়।

নিহত সাগর হোসেন আশুলিয়া আউকপাড়ার মৃত জাকির হোসেনর ছেলে। তার স্থানীয় বাজারে চায়ের দোকান ছিলো। গ্রেপ্তার মেহেদী হাসানের আউকপাড়ায় শাজাহান মিয়ার ছেলে ও শাহ হাসান একই এলাকার মোকসেদ হাসানের ছেলে।

নিহতের মা খাদিজা বেগম ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে জানান, নিহত সাগর হোসেনকে কৌশলে ডেকে নিয়ে হত্যা করে তার বন্ধুসহ অন্যান্যরা। এমনকি নিখোঁজের রাত থেকে মুঠোফোনে অপহরনের কথা বলে বিকাশে টাকা দাবী করে তারা। হুমকি দেয় টাকা না দিলে ছেলে হত্যা করে ফেলবে। ঘটনার পর দিন ২১ আগষ্ট থানায় অভিযোগ দায়ের করি। পরে পুলিশ গতকাল ভোরে জানায়, আউকপাড়া একটি জঙ্গলে লাশ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও আশুলিয়া থানার এস আই মনিরুজ্জামান মোল্লা জানান, গত রাতে গ্রেপ্তারের দুইজনের তথ্যের ভিত্তিতে সাগরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে, পালাতক সাগর মিয়ার বান্ধবীর কোন একটি ভিডিও নিহতের সাগরের কাছে ছিলো । সেই ঘটনার জের ধরে এই হত্যাকান্ড ঘটেছে। পরে খুনিরা নিজেদের আড়াল করতে অপহরনের নাটক সাজায়। তবে মুল আসামী সাগর মিয়া গ্রেপ্তার হলে হত্যার মুল রহস্য জানা যাবে।

ঘটনার সত্যত্যা নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিজাউল হক দিপু জানান, এঘটনায় নিহতের মামা বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ইতিমধ্যে জড়িত দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রেমের জন্য এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। মুল আসাীকে গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।

 

 

কিউএনবি/রেশমা/৪ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং/দুপুর ২:২১