২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১১ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:৩০

বড়াইগ্রামে ছয় মাসের গর্ভবতী মায়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

 

অমর ডি কস্তা,বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের বড়াইগ্রামের লক্ষীকোল বাজার এলাকায় প্রকৌশলী আজাদ সেখের বাড়ির দোতলায় উঠার সিঁড়ির গ্রিলের সাথে গলায় দড়ি পেঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূ মার্জিয়া বেগমের (৩৮) মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার সকাল ৬টার দিকে বাড়ির লোকজন ঘুম থেকে উঠে সিঁড়িতে ঝুলন্ত লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়।পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নাটোর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।গৃহবধূ মার্জিয়া ছয় মাসের গর্ভবতী ছিলো।সে বাগডোব গ্রামের রইচ আলীর মেয়ে ও ভরতপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক আলতাব হোসেনের দ্বিতীয় স্ত্রী।

বড়াইগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তহসিন হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, প্রথম স্বামী ভরতপুর গ্রামের ইয়াকুব আলী মালয়েশিয়া থাকাকালীণ সময়ে দুই সন্তানের জননী মার্জিয়া বেগমের সাথে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে একই এলাকার পল্লী চিকিৎসক আলতাবের সাথে।

বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে গত ৩ বছর আগে আলতাব তার প্রথম স্ত্রীকে না জানিয়ে গোপনে মার্জিয়াকে বিয়ে করেন এবং বড়াইগ্রাম পৌরসভার লক্ষীকোল বাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতে থাকেন।

এক পর্যায়ে মার্জিয়া গর্ভবতী হয়ে পড়লে তা গোপন রাখতে বলেন স্বামী আলতাব।গর্ভকালীণ সময়ে ঠিকমতো স্ত্রীর খবর না নেয়া, বাজার-সদাই ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না করায় এবং সন্তানের বিষয় গোপন রাখাতে বলায় অভিমান ও মনের দুঃখে মার্জিয়া বেগম আত্মহত্যা করতে পারে বলে ধারণা করছেন পুলিশ ও মার্জিয়ার স্বজনেরা।এসআই তহসিন আরও জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।থানায় অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৩রা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং /বিকাল ৫:৪১