২০শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:৪৭

শরীয়তপুরে বিএনপি-যুবলীগ সংঘর্ষ, আহত ২৫

নিউজ ডেস্কঃ  শরীয়তপুরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে হামলার ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ সময় সংঘর্ষে  দু‘পক্ষের ২৫ নেতা-কর্মী আহত হয়েছে। আহতদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল ও ঢাকায় চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান আয়োজন করে শরীয়তপুর জেলা বিএনপি। শনিবার পৌর এলাকার ধানুকায় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন কালুর বাস ভবনে এ অনুষ্ঠান চলছিল। বেলা ১১টার দিকে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা ওই অনুষ্ঠানে হামলা করে। তখন বিএনপির নেতা কর্মীদের সাথে যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের সাথে সংঘর্ষ হয়। বেলা ২টা পর্যন্ত দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। দু‘পক্ষই লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়। সংঘর্ষে দু‘পক্ষের অন্তত ২৫ নেতা কর্মী আহত হয়েছে।
বেলা দেড়টার দিকে জেলা বিএনপির সভাপতি ওই অনুষ্ঠাস্থল থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলে যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা পুনরায় তাকে ধাওয়া করে। বেলা চারটা পর্যন্ত তিনি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে অবরুদ্ধ ছিলেন।

আহত ব্যক্তিরা হলেন,জেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক জাহাঙ্গীর মাদবর,পৌরসভা ছাত্রলীগের আহবায়ক প্রকাশ বন্ধু কছি, যুবলীগ কর্মী জয় মোল্যা,সবুজ মাদবর,ফরহাদ ঢালী,রিয়াদ হাসান মাল,জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহাবুব মোর্শেদ টিপু, পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি নয়ন সরকার,জেলা ছাকত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আবুল খায়ের,ভেদরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক হাসান হাওলাদার,জেলা মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক রাশিদা গনি,জেলা জাসাসের সহসভাপতি নিপা আক্তার,বিএনপি কর্মী সাহাদাৎ হোসেন ও জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরনের গাড়ির চালক নুর মোহাম্মদ।

জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরন বলেন,বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠান করার জন্য পুলিশের অনুমতি নেয়া হয়েছে। স্থানীয় আ.লীগের নেতাদেরও বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারপরও অনুষ্ঠানে হামলা করার ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। আ.লীগ কর্মীদের হামলায় আমাদের ১৫ ব্যক্তি আহত হয়েছে।

জেলা যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক জাহাঙ্গীর মাদবর বলেন, বিএনপির অনুষ্ঠানে কেউ হামলা করেনি। আমরা যুবলীগের কর্মী সভা করার জন্য জেলা ষ্টেডিয়ামের পাশে জড়ো হয়েছিলাম। তখন বিএনপির নেতা কর্মীরা আমাদের উপর হামলা করেছে। তাদের হামলায় আমাদের ১০ নেতা কর্মী আহত হয়েছে।
শরীয়তপুরের পালং মডেল থানার পরিদর্শক উৎপল বিশ্বাস বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কিছু সমস্যা হয়েছে এমন সংবাদ পেয়ে আমরা ছুটে আসি। সেখানে যুবলীগের এক পক্ষ ও বিএনপির এক পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ যাওয়ার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে।

কিউএনবি/নিল/ ১লা সেপ্টেম্বর,২০১৮/১৯ঃ২৬