১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৪:৩৬

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে যেসব খাবার

নিউজ ডেস্ক- সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, কিছু খাবার আছে যেগুলো প্রাকৃতিকভাবেই ক্যান্সার কোষদের মারতে সক্ষম এবং আপনি কেমোথেরাপির ক্ষতিকর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থেকেও রেহাই পাবেন। ক্যান্সার প্রতিরোধ করে যেসব খাবার-

১. টমেটো-গাজর
গাজর অনেক পুষ্টিগুণ ও ভিটামিনে ভরপুর খাদ্য। আর এই গাজরে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারটিন আছে যা বিভিন্ন ক্যান্সার যেমন ফুসফুস ক্যান্সার, শ্বাসনালি ক্যান্সার, পাকস্থলী ক্যান্সার, অন্ত্র ক্যান্সার এমনকি স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে থাকে। প্রতিদিন একটি গাজর বা এক গ্লাস গাজরের রস পান করলে এসব ক্যান্সার প্রতিরোধ করা সম্ভব। অনেক গবেষণায় দেখা গেছে যারা রসুন খান তাদের ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা অনেক কম থাকে। এটি ক্যান্সারের জীবাণু প্রতিরোধ করে। কিছু ক্যান্সারের জীবাণু ভেঙে ফেলে। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিতভাবে টমেটোর সস বানিয়ে খান তাদের প্রস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি ৫০% কমে আসে। টমেটোতে আছে লাইকোপেন যা একটি শক্তিশালি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।

২. আঙ্গুর
আঙ্গুরের চামড়ায় আছে রেজভারেট্রল নামের একটি উপাদান যেটি হৃদরোগ এবং ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

৩. ব্লুবেরি এবং র‌্যাসপবেরি
এই দুটি ফল অক্সিডেটিভ ড্যামেজ কমাতে সক্ষম এবং অ্যানজিওজেনেসিস বা ক্যান্সারের নতুন কোষ বৃদ্ধির প্রক্রিয়াও প্রতিরোধ করে। এসবে আছে শক্তিশালী ফাইটোকেমিকেল।

৪. ডার্ক চকোলেট
গবেষণায় দেখা গেছে, ডার্ক চকোলেট অ্যানজিওজেনেসিস এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম এবং ক্যান্সারের ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধ করতে পারে।

৫. কফি এবং গ্রিন টি
এই দুটি পানীয় টিউমারে অ্যানজিওজেনেসিস বা নতুন কোষ বৃদ্ধি প্রতিরোধ করে এবং ক্যান্সারের ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধ করে।

৬. হলুদ ও বাদাম
হলুদের আছে বেশ কয়েকটি স্বাস্থ্যগত উপকারিতা। আর এর শীর্ষ একটি উপকারিতা হলো ক্যান্সারের ছড়িয়ে পড়া বন্ধ এবং কোষবৃদ্ধি প্রতিরোধ করা। বাদামে প্রচুর পুষ্টিগুণ থাকে। আর হৃদপিণ্ডের সুস্থতার জন্য প্রয়োজনীয় ফ্যাট থাকে বাদামের মধ্যে। যদি আপনি ক্যান্সারের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত ক্ষুধাহীনতায় ভুগে থাকেন অথবা ওজন কমাতে চান তাহলে বাদাম সবচেয়ে ভালো, কারণ অল্প পরিমাণ বাদাম আপনাকে অনেক পরিমাণ পুষ্টি প্রদানে সক্ষম। বাদামে সেলেনিয়াম নামক অ্যান্টি ক্যান্সার উপাদান বিদ্যমানের কারণে কোলন, ফুসফুস এবং অন্যান্য ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।

কিউএনবি/নিল/১লা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং /১৫ঃ৩১