২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৫৩

অ্যানার্জি ড্রিংক কেন শিশুদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ?

 

ডেস্ক নিউজ : যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী নিজেই বলেছেন দেশটিতে ১৮  বছরের কম বয়েসী শিশুদের কাছে অ্যানার্জি ড্রিংক বিক্রি নিষিদ্ধ হতে পারে। শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর-এমন উদ্বেগের মধ্যেই এমন মন্তব্য করেছেন তিনি।

শিশুদের কাছে অ্যানার্জি ড্রিংক বিক্রি অবৈধ ঘোষণার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সরকার এ জন্য একটি গণ-আলোচনার (পাবলিক কনসালটেশন) সূচনা করেছে। কোন বয়স থেকে এটি নিষিদ্ধ হওয়া উচিত সে বিষয়ে মতামতও চাওয়া হচ্ছে সরকারের তরফ থেকে।এ বিষয়ে দুটি বিকল্পও দেওয়া হয়েছে। একটি হলো ১৬ বছর, অন্যটি ১৮।

স্কটল্যান্ড, উত্তর আয়ারল্যান্ড ও ওয়েলস নিজেরাই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করতে পারে।

এত উদ্বেগের কারণ কি?

গবেষণায় দেখা গেছে, ইউরোপের মধ্যে যুক্তরাজ্যের শিশু বা তরুণরাই বেশি এনার্জি ড্রিংক পান করে থাকে। এসব পানীয়তে উচ্চ মাত্রার সুগার ও ক্যাফেইন থাকে যার মাত্রা প্রায়শই দেখা যায় কোমল পানীয়তে থাকা এ ধরনের উপাদানের চেয়ে বেশি।

ফলে এ পানীয় বেশি মাত্রায় পান করলে শিশুদের জন্য স্বাস্থ্য সমস্যা তৈরির ঝুঁকি থেকে যায়। কারণ এ থেকে স্থূলতা, দাঁতের ক্ষয় রোগ, মাথাব্যথা ও ঘুমের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

শিক্ষক সংগঠনের জরিপ থেকে দেখা যায়, যেসব শিশু বেশি অ্যানার্জি ড্রিংক পান করে শ্রেণিকক্ষে তাদের আচরণ তুলনামূলক খারাপ। এসব কারণেই প্রতি লিটারে ১৫০ মিলিগ্রামের বেশি ক্যাফেইন আছে এমন পানীয়র ওপর নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হতে পারে।

অনেক দোকান ইতিমধ্যে নিজেরাই ১৬ বছরের কম বয়সীদের কাছে এ ধরনের পানীয় বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে। তবে শিশুরা চাইলে খুচরা বিক্রেতা ও ভেন্ডিং মেশিন থেকে কিনতে পারে।

দেশটির জনস্বাস্থ্যবিষয়ক মন্ত্রী স্টিভ ব্রাইন বলেন, ‘স্বাস্থ্য ও শিক্ষার ওপর ঝুঁকি তৈরি করতে পারে এমন কিছু থেকে শিশুদের রক্ষার দায়িত্ব আমাদের।’

অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে শিশুদের স্থূলতাকে দেশের একটি বড় স্বাস্থ্যবিষয়ক চ্যালেঞ্জ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেন, ‘শিশুদের জন্য সবচেয়ে ভালোভাবে তাদের জীবন শুরুর জন্য আমরা কী করতে পারি সেটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেজন্য আমি সবাইকে তাদের মত দেওয়ার জন্য উৎসাহিত করছি।’ 

কি থাকে অ্যানার্জি ড্রিংকে?

আগেই বলা হয়েছে এতে উচ্চ মাত্রার সুগার ও ক্যাফেইন থাকে যার পরিমাণ হয় ২৫০ মিলি ক্যানে অন্তত ৮০ মিলিগ্রাম। অথচ ৩৩০ মিলির একটি কোকাকোলা ক্যানে এর পরিমাণ থাকে ৩২ মিলিগ্রাম।

কিছু ছোট ‘এনার্জি শট’-এ ৬০ মিলি বোতলে ১৬০মিলিগ্রাম পর্যন্ত ক্যাফেইন থাকতে পারে। অথচ বেশী মাত্রার ক্যাফেইন উদ্বেগ ও আতঙ্কিত হওয়ার মতো সমস্যা তৈরি করতে পারে। এটি রক্তচাপও বাড়িয়ে দেয়।

গর্ভবতী কিংবা সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ান এমন নারীদের দিনে ২০০ মিলিগ্রামের বেশি ক্যাফেইন না সেবন করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সুগার কতটা ক্ষতি করতে পারে?

অতিরিক্ত সুগারের কারণে স্থূলতা, দাঁতের সমস্যা ছাড়াও টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি তৈরি করে।

জনস্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান নির্বাহী ডানকান সেলবি বলেন, ‘শিশুদের স্থূলতা মোকাবেলায় এ ধরনের পানীয় বিক্রির ওপর বিধিনিষেধ আরোপ হবে দারুণ শক্তিশালী পদক্ষেপ।’

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৩০শে আগস্ট, ২০১৮ ইং/দুপুর ১:০৪