১৭ই জুন, ২০১৯ ইং | ৩রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ২:৪৭

দেশে আরো চারটি নতুন মেডিকেল কলেজ

 

ডেস্কনিউজঃ চারটি মেডিকেল কলেজ চালুর প্রস্তাবে এরইমধ্যে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নওগাঁ, নেত্রকোনা, মাগুরা ও নীলফামারীতে এই চার মেডিকেল কলেজ হবে। এ ছাড়া বাকি একটি অনুমোদনের প্রক্রিয়াধীন আছে। এই মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হবে চাঁদপুরে।

আজ রোববার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় ও সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ তথ্য জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের নির্বাচনী প্রতিশ্রুত হিসেবে বিভিন্ন জেলায় নতুন করে চারটি মেডিকেল কলেজ তৈরি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে অবকাঠামো উন্নয়নকাজ শুরু করা হয়েছে। ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে এসব মেডিকেলে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।’

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের প্রতিশ্রুত অনুযায়ী বাংলাদেশে চিকিৎসাসেবা মানুষের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে সারাদেশে প্রতি জেলায় একটি করে সরকারি মেডিকেল কলেজ তৈরি করা হবে। সে লক্ষ্যেই আমরা নতুন নতুন মেডিকেল কলেজ তৈরি করেছি।’

আগামী নভেম্বরের মধ্যে বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে উপজেলা পর্যায়ে সাত হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের চিকিৎসাসেবায় সংকট দূরীকরণে বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে চিকিৎসক নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী নভেম্বরের মধ্যে উত্তীর্ণ সকলকে দেশের বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ে নিয়োগ দেওয়া হবে। সেখানে থেকে তিন বছর তাদের বাধ্যতামূলক চিকিৎসাসেবা দিতে হবে।’

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘রাজধানীবাসীর জন্য ঢাকার শাহবাগে ৫০০ শয্যার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ নতুন একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল তৈরি করা হবে। আগামী ১৩ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ মেডিকেলের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। কোরিয়া সরকারের আর্থিক সহায়তায় এ হাসপাতালটি তৈরি করা হবে।’

চানখারপুলে নির্মাণাধীন শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট প্রসঙ্গে নাসিম বলেন, ‘আগামী অক্টোবর মাসে এটির উদ্বোধন করা হবে। এটি বিশ্বের বৃহত্তম বার্ন ইনস্টিটিউট। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর উদ্বোধন করবেন।’

স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের চিকিৎসা সেবা অনেক উন্নত হয়েছে। এখন বিদেশ থেকেও চিকিৎসা নিতে বাংলাদেশে আসে। ক্যানসারের অনেক রোগী বাংলাদেশে এসে চিকিৎসা নেন।’

এ সময়ে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য সেবা ও পরিকল্পনা বিভাগের সচিব জি এম সালেহ উদ্দিন, অতিরিক্ত সচিব কাজী আ খ ম মুহিউল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

কিউএনবি/বিপুল/২৬শে আগস্ট, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:৫৩ 

Please follow and like us:
0
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial