১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৯:৪১

রংপুরে চামড়ার বাজার মন্দা

 

ডেস্ক নিউজ : রংপুর বিভাগে পশুর কাঁচা চামড়ার বাজারে ধস নেমেছে। কোরবানি পশুর লবণছাড়া কাঁচা চামড়ার বাজার শুরু থেকেই নিম্নমুখী। অনেক ব্যবসায়ী চামড়া কিনে পড়েছেন মহাবিপদে। কোথাও দাম না পেয়ে নিয়ে এসেছেন রংপুরের বাজারে শাপলার চামড়া পট্টিতে। দাম কম হওয়ায় মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীরা দারুন বিপাকে পড়েছে। গরুর চামড়া কিছুটা গতি হয়েছে। কমবেশি যাইহোক ব্যবসায়ীরা পেয়েছেন। কিন্তু যারা ছাগলের চামড়া কিনেছিলেন তাদের অবস্থা বড়ই করুণ। চামড়া কেনা দূরের কথা, আড়তদাররা ছুঁয়েও দেখছেন না বলে জানান কাউনিয়া থেকে আসা আব্দুর রাজ্জাক হোসেন নামে এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী।

রংপুরের চামড়া ছাগলের চামড়া কিনে তাতে লবণ মাখছিলেন দুলাল হোসেন ও তার কর্মীরা। ছাগলের চামড়ার দর কেমন জানতে চাইলে বলেন, দাম জিজ্ঞাসা করে কি করবেন? নিবেন? এখন কেউ বলে না। প্রতিটি চামড়ায় প্রায় ৩০-৪০ টাকার লবণ লাগছে। এই চামড়া এখন কি করবো? রাস্তায় ফেলে দিয়ে যাবো? দুলাল হোসেন বলেন, ছাগলের প্রতিটি চামড়ায় ৪০ টাকা করে লোকসান।  বড় আকারের একটি খাসির চামড়া ৪০ টাকা দাম করছেন এক আড়তদার। চামড়াটি কাউনিয়ার শহীদবাগ ইউনিয়ন থেকে ৮০ টাকায় কিনেছেন রাজ্জাক। এবার ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি মাদরাসার ছাত্ররা যে চামড়া সংগ্রহ করেছিল তার সিংহভাগই বিক্রি হয়নি। নগরীর শাপলায় চামড় বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। রংপুরের বিভিন্ন উপজেলা থেকেও চামড়া আসছে। শুক্রবার (২৪ আগস্ট) পর্যন্ত লবণছাড়া চামড়া এখানে আসছে। তাই পড়তি এই দাম আরও পড়বে বলেই দাবি আড়ৎদারদের।
আড়ৎদার মাহবুবার হোসেন বেলাল বলেন, আসলে চামড়ার সিন্ডিকেট নিয়ে যে কথা হচ্ছে সেটা আদৌ ঠিক না। আন্তর্জাতিক বাজারেই দাম কম। চামড়ার চাহিদা না থাকলে আমরা কিনে কি করবো। আর সিন্ডিকেট যদি হয়ে থাকে সেটা ট্যানারি মালিকরা করে। তাদের কারণেই চামড়ার এই দুরাবস্থা। তার সঙ্গে একমত আড়তদার সানা মিয়াও। আমরা এখন যে চামড়া কিনেছি সেগুলো ট্যানারি মালিকরা ন্যায্যমূল্য দেবে না। তারা মাল নিলেও টাকা পরিশোধ করে না। তাই ঝুঁকি নিয়েই চামড়া কিনছি। ছাগলের চামড়ার দাম জানতে চাইলে আড়তদার লতিফ  মিয়া বলেন, গরুর চামড়াই চলে না, ছাগলের চামড়া কে নেবে? ওগুলো এখন দেখার সময়ও নেই। এজন্য এখানে ছাগলের চামড়া নিয়ে অনেকেই মাথায় হাত দিয়ে বসে আছেন। শেষ পর্যন্ত এই চামড়া বিক্রি হবে কিনা তা নিয়েও সন্দিহান ট্যানারি মালিকরা ।
কিউএনবি/আয়শা/২৩শে আগস্ট, ২০১৮ ইং/রাত ১০:১১