১৮ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ৩রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৩:২৯

মির্জাপুরে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ঈদগাঁ মাঠের জমি দখলের অভিযোগ, নামাজ পড়া অনিশ্চিত

 

শামসুল ইসলাম সহিদ, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মসজিদ সংলগ্ন ঈদগাঁ মাঠের জমি দখল করে দেয়াল নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জমি দখল করে দেয়াল নির্মাণ করায় সহ¯্রাধিক মুসুল্লীর ঈদের নামাজ আদায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। জমি দখলের বিষয়ে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরও তিনি দেয়াল নির্মাণ অব্যহত রেখেছেন বলে জানা গেছে। 

ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর সিকদার কর্তৃক জমি দখলের এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার তরফপুর ইউনিয়নের ছিটমামুদপুর দিঘিরচালা বাজার জামে মসজিদ ঈদগাঁ মাঠে।
জানা গেছে, ১৯৮৩ সালে ছিটমামুদপুর গ্রামের হাড়ান সিকদার দিঘির চালা মসজিদ ও ঈদগাঁর নামে ছিটমামুদপুর মৌজার ৬৪০ খতিয়ানে ৪৫২ দাগে ২৩ শতাংশ জমি ৪৮৮৪ নং ওয়াক্ফ সাবিলিল্লাহ দলিল মূলে দান করেন। ছিটমামুদপুর বাজার সংলগ্ন ওই জমিতে পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় একাংশে দ্বিতল মসজিদ নির্মাণ করার পর চতুর পাশে পাকা দেয়ালও নির্মাণ করা হয়।

প্রতিদিন ওই মসজিদে শতাধিক মুসুল্লী জামায়তের সঙ্গে নামাজ আদায় করে থাকেন। মসজিদ সংলগ্ন খালী জায়গায় প্রতি ঈদে সহ¯্রাধিক মুসুল্লী এক সাথে ঈদের নামাজ আদায় করে থাকেন। সম্প্রতি তরফপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ছিটমামুদপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর সিকদার বাজার সংলগ্ন মসজিদের ওই মূল্যবান ৫ শতাংশ জমি নিজের দাবি করে মসজিদের প্রবেশ গেইট ও পাঁকা দেয়াল ভেঙে ফেলে নিজে পাঁকা দেয়াল নির্মাণ শুরু করেছেন।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর সিকদারের এ অনৈতিক কাজে এলাকাবাসী বাঁধা প্রদান করলে তিনি তাদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। গ্রামবাসীর পক্ষে লাল মিয়া মির্জাপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিলেও জাহাঙ্গীর সিকদার দেয়াল নির্মাণের কাজ অব্যহত রেখেছেন। নিরুপায় গ্রামবাসীর পক্ষে লাল মিয়া, ফজলুল হক, সিরাজ মিয়া, ছানোয়ার হোসেন মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবারও লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এছাড়া ওই জমি দখল করে যাতে দেয়াল নির্মাণ করতে না পারেন সেজন্য আদালতে ১৪৪ ধারা চেয়ে একটি মামলাও করেছেন।

এত কিছুর পরও জাহাঙ্গীর সিকদার ঈদগাঁ মাঠের জমিতে দেয়াল নির্মাণ চালিয়ে যাচ্ছেন। ঈদগাঁ মাঠের জমি দখল করে পাঁকা দেয়াল নির্মাণ করায় এলাকার প্রায় সহস্রাধিক মুসুল্লীর ঈদের নামাজ আদায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ছিটমামুদপুর গ্রামের শওকত হোসেন, বাবুল মিয়া ও লুৎফর রহমান বলেন, দীর্ঘ তিন যুগ ধরে আমরা এই ঈদগা মাঠে নামাজ আদায় করে আসছি। জাহাঙ্গীর সিকদার জায়গা দখল করায় আমাদের ঈদের নামাজ আদায় অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর সিকদারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান জমিটি তার দাবি করেন বলেন, ঈদগা মাঠের জমি ২৩ শতাংশ ঠিকই রয়েছে। অতিরিক্ত জায়গায় দেয়াল নির্মাণ করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।
মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একে এম মিজানুল হক ঘটনা সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে আদালতে ১৪৪ ধারায় একটি মামলা হয়েছে। উভয় পক্ষকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

 

 

কিউএনবি/আয়শা/২১শে আগস্ট, ২০১৮ ইং/রাত ৯:১৫