১৬ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:৫৪

বীরগঞ্জ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসারের যোগসাজশে ৩২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্লিপের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ

 

মো: আফজাল হোসেন ফুলবাড়ী দিনাজপুর প্রতিনিধি : বীরগঞ্জ উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার মোছাঃ খায়রুন নাহারের যোগসাজশে ৩২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নামমাত্র কাজ করে সমুদয় স্লিপের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ সূত্রে প্রকাশ, বীরগঞ্জ উপজেলার ৩২টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসারের যোগসাজশে ৩২টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নামমাত্র কাজ করে বাকী টাকা তারা ভাগ বাটোয়ারা করে নিয়েছেন বলে জানা গেছে।শনিবার দুপুরে নিজপাড়া গ্রামডাঙ্গী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় নামমাত্র কাজ করা হয়েছে।

এব্যাপারে নিজপাড়া গ্রামডাঙ্গী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল লতিফের সঙ্গে কথা বলে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কর্মকর্তাদের টাকা দেওয়ার কারণে স্লিপের কাজ সমুদয় করা সম্ভব হয়নি। আমি কি বাড়িতে জমি বেচে এনে কর্মকর্তাদের টাকা দিব।বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল লতিব ছাড়া অন্য কোন শিক্ষক কে পাওয়া যায়নি। এব্যাপারে প্রধান শিক্ষককে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, অন্যান্য শিক্ষকরা ছুটি নিয়েছেন।

ছুটির দরখাস্ত দেখতে চাইলে তিনি দেখাতে ব্যর্থ হন।এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার মোছাঃ খায়রুন নাহারের সঙ্গে তার মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এব্যাপারে এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানিয়েছেন।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/১৯শে আগস্ট, ২০১৮ ইং/বিকাল ৪:২০