২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:৪৮

চৌগাছায় শেষ মূহুর্তে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুর হাট

 

এম এ রহিম,চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের চৌগাছায় শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুর হাট।কোরবানীর পশুর হাটে ভারতীয় গরু না আসায় দেশী গরুর খামারীরা দাম পেয়ে বেজায় খুশি।

জানাযায়, প্রতি বছর কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে ভারতীয় গরুর আগ্রাসনে দেশী গরুর উপযুক্ত দাম থেকে বঞ্চিত হয় খামার মালিকরা।এ বছর ভারতের গরু না আসার ফলে দেশী গরুর, মহিষ ও ছাগলের উপযুক্ত দাম পাচ্ছেন উপজেলার কৃষক ও দেশী গরুর খামারিরা।রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বড়বড় জেলা থেকে আসা ব্যাপারীরা (রবিবার ও বুধবার) চৌগাছা কোরবানীর পশুর হাট থেকে প্রতি হাটে ১০/১২ ট্রাক গরু, মহিষ ও ছাগল নিয়ে যাচ্ছেন। ফলে এ বছর দেশী গরুর খামারি ও কৃষকরা গরু উপযুক্ত দামে বিক্রি করতে পারচ্ছেন।

এদিকে এলাকার গরু ক্রেতা-বিক্রেতা ও খামারিদের সুবিধার জন্য কোরবানীর বাকি দিন গুলোতে প্রতি দিনই চৌগাছাতে পশুর হাট বসানো হয়েছে।উপজেলার মাকাপুর গ্রামের আমজেদ আলী বলেন রবিবার চৌগাছা পশুর হাটে ৫ লাখ ৩০ হাজার টাকায় দুটি বড় গরু বিক্রি করেছি। দেশীকুরাচ এ ষাড়গরুদুটি বিক্রি করে সকল খরচ বাদে প্রায় কমপক্ষে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা লাভ হয়েছে।

জানাযায়, চৌগাছা উপজেলাটির অবস্থান ভারতের সীমান্ত ঘেঁষে। প্রায় ৫শ ২৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ভারতীয় সীমান্ত রয়েছে। প্রতি বছর কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে উপজেলার কাবিলপুর ,শাহাজাদপুর, মাশিলা, আন্দুলিয়া, পাঁচপীরতলা ও বর্ণি সীমান্তে বেশকটি পয়েন্ট দিয়ে কাঁটাতারের বেড়া কেটে প্রতি রাতে/দিনে ভারতীয় গরু এদেশে আনা হতো।

এ সব গরু সরকারী দলের একটি প্রভাবশালী সিন্টিকেটের নির্দিষ্ট কিছু স্থান থেকে ট্রাক বোঝাই করে দেশের রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় পাঠানো হতো।এ বছর ব্যাপক কড়াকড়ির ফলে ভারতীয় গরু আনতে পারছেনা।

চৌগাছা গরুর হাটে কোরবানীর জন্য গরু কিনতে আসা উপজেলার ইছাপুর গ্রামের দেওয়ান শফিকুল ইসলাম জানান গত কোরবানীতে যে ধরণের গরু ৭৫ হাজার টাকায় কিনে ছিলাম এ কোরবানীতে সেই ধরণের গরু ৯০ হাজার টাকায় কিনেছি।

গরু কিনতে আসা গরুর ব্যাপারী কলিমাহমুদ জানান এ বছর ভারতীয় গরু না আসায় দেশী গরুর দাম অনেকটা বেশী।চৌগাছা পশুর-হাট ঘুরে দেখা যায় হাটের জায়গা ছাড়াও আশপাশের রাস্তার উপর ও পড়োজায়গা দেশী গরুতে ভরে গেছে।

এ ব্যাপারে মাশিলা বিজিবি ক্যাম্প ইনচার্য জানান ভারত থেকে গরু আসা ঠেকাতে আমরাঅন্য যে কোন সমায়ের থেকে অনেক কঠোর।অতিসম্প্রতি ভারত থেকে চোরাই পথে আসা বেশ কটি গরু সীমান্তের চৌগাছা পশুর হাট থেকে আটক করা হয়।ভারতীয় এ গরু গুলো আটক করার সময় স্থানীয় লোকজন ও বিজিবি সদস্যদের মধ্যে ধস্তাধস্তিও হয়েছিল।

পরে অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েন করে গরু আটক করা হয়।গত ১২ আগষ্ট ভারত থেকে চোরাই পথে আসা দুটি গরু চৌগাছা থানা পুলিশের সহযোগীতায় ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিথিতে অকসান দেওয়া হয়।তাই কোন ব্যবসায়ী ভারতীয় গরু কিনছেন না।কোরবানী ঈদের আর মাত্র কদিন বাকি।

এ ব্যাপারে পশু হাট মালিক আতাউর রহমান লাল বলেন, আমাদের সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় কোন গরু এ বছর আসছে না।কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে প্রতিদিন সকলা থেকে রাত পর্যন্ত এ হাটে গরু-ছাগল বিক্রি হচ্ছে। হাটে আসা ক্রিতা-বিক্রেতা ও ব্যাপার দের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে অতিরিক্ত নিরাপত্তা জনবল নিয়োগ করা হয়েছে।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/১৯শে আগস্ট, ২০১৮ ইং/বিকাল ৪:১১