১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৯:২৮

পাইগাছায় ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানকে হয়রানি করতে আসামী করার অভিযোগ

 

মোঃ আব্দুল আজিজ,পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : পাইকগাছায় ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানকে হয়রানি মূলক আসামী করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।পুলিশ বিষয়টিকে রহস্যময় উল্লেখ করেছেন।

সূত্রমতে, উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের চককাওয়ালী গ্রামের শেখ আবু বক্কর সিদ্দিকীর মেয়ে তানজিলা খাতুন (৩০) কে পুনরায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ১৫ জুলাই তার প্রাক্তন স্বামী বিষ্ণপুর গ্রামের মোসাল উদ্দীন সরদারের ছেলে আলমগীর হোসেন সরদার (৩৫) ধর্ষণ করে এমন অভিযোগে তানজিলা খাতুন নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে আলমগীর হোসেন ও চাঁদখালী ইউপি চেয়ারম্যান জোয়াদুর রসুল বাবুকে আসামী করে মামলা করেন।

এ দিকে ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানকে হয়রানি করতে আসামী করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেছেন।চেয়ারম্যান বাবু বলেন, এখান থেকে কয়েক বছর আগে আমি থেকে আলমগীর ও তানজিলার মধ্যে বিয়ে দেই। বিয়ের পর তারা দু’জনই চাকুরী সূত্রে চট্টগ্রামে বসবাস শুরু করে। তানজিলা ওই খানেই আলমগীর নামে আরেক ছেলের সঙ্গে বিয়ে করে।এ নিয়ে আলমগীর ও তানজিলার মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি হয়।

এক পর্যায়ে তানজিলা আলমগীরের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করে। যা তদন্তের দায়িত্ব আমার উপর অর্পন করা হয়।আমার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আলমগীর মামলা থেকে জামিন পায়।এ কারণে তানজিলা আমার উপর অখুশি হয়। এ ছাড়াও জনপ্রতিনিধি হওয়ায় এলাকার একটি গ্র“প আমার ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে তৎপর রয়েছে।

এ সব ষড়যন্ত্রের অংশ হিসাবে আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা হওয়া সত্বেও ৬৮ বছর বয়সে ধর্ষণ মামলায় আমাকে হয়রানী মূলক আসামী করা হয়েছে।এ ব্যাপারে ওসি আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানান, ধর্ষণের ঘটনাটি রহস্যময়, এমনকি রহস্যের প্রমাণও রয়েছে।তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত বলা সম্ভব নয়।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/১৬ই আগস্ট, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:২৭