ব্রেকিং নিউজ
২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ১১:৫১

শরীয়তপুর ডিসি চত্বরে হরিনজনদের ঝাড়ু মিছিল

 

খোরশেদ আলম বাবুল,শরীয়পুর প্রতিনিধি : সম্প্রতি শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) কার্যালয়ে পরিচ্ছন্ন কর্মী ও নৈশ্যপ্রহরী পদে লোক নিয়োগ করা হয়েছে।জেলায় অবস্থানরত হরিজন সম্প্রদায় উপেক্ষা করে অন্য জেলার ও ভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজনদে ভুয়া ও জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলে হরিজনদের অভিযোগ রয়েছে।

এ নিয়োগ বাতিলের দাবীতে বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় বাংলাদেশ হরিজন ঐক্য পরিষদ শরীয়তপুর জেলা শাখার পক্ষে ডিসি অফিস চত্বরে ঝাড়ু মিছিল বের করেছে হরিজন ঐক্য পরিষদ।একই সাথে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।এর পূর্বে গত ১৪ আগষ্ট মঙ্গলবার রাতে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বরে জেলা প্রশাসকের গাড়ি লক্ষ্যকরে মলমুত্র ঢেলে দিয়েছে চাকরি প্রত্যাশী হরিজনরা।

হরিজন ঐক্য পরিষদের সভাপতি শ্রী দর্পণ চন্দ্র দাস স্বাক্ষরিত নিয়োগ বাতিলের আবেদন সূত্রে জানাগেছে, গত বছরের ৫ ডিসেম্বর শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয় পরিচ্ছন্ন কর্মী ও নৈশ্যপ্রহরী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তী প্রকাশ করে। সেই মোতাবেক গত ১৩ আগষ্ট আবেদনকারীদের মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।সেই নিয়োগে ভিন্ন জেলার ও ভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকদের মিথ্যা ও জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।এ নিয়োগ বন্ধ করে এবং জেলায় অবস্থানরত হরিজন সম্প্রদায়কে চাকরি না দেয়া হলে তাদের এ আন্দোলন ও বিক্ষোভ চলবে।

বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিল থেকে আন্দোলনকারী নিশি রাণী, সুমন জমাদার ও তরুন কুমার বলেন, প্রধান মন্ত্রীর প্রতিশ্রতি অনুযায়ী চাকরির ক্ষেত্রে আমাদের ৮০ শতাংশ কোটা রয়েছে।এবারের নিয়োগে আমাদের এক শতাংশ কোটাও দেয়া হয়নি।আমরা হরিজন সম্প্রদায়ের লোক। আমরা জেলাকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখি।

আমাদের নিয়োগ না দিয়ে অন্য জেলার ভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকদের ভুয়া ও জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে নিয়োগ দিয়েছে।আমরা তাহলে কী করে খাব। আমরা ডিসি স্যারকে অনুরোধ করব আমাদের যদি চাকরি দিতে না পারেন তাহলে মাদক বেচার লাইসেন্স দেন।আমাদের পরিবার ও সন্তানদের নিয়ে বাচার সুযোগ দেন।মিনতি রাণী নামে একজন হিন্দুকে হরিজন কোঠায় নিয়োগ দিয়েছে।

তার হরিজন ঐক্য পরিষদের কোন সনদ নাই। মিনতি রাণীর হরিজন সনদের জন্য আমাদের সভাপতিকে মোটা অংকের টাকা দিতে চেয়েছিলেন। আমাদের সভাপতি ঘুষ গ্রহন করেনি এবং সনদও দেননি।তবুও মিনতি রাণীর চাকরি হয়েছে।আমাদের দাবী মেনে না নিলে আন্দোলন চালিয়ে যাব। আবারও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে মলমূত্র নিক্ষেপ করব।

জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এনডিসি বেলাল হোসাইন আন্দোলনকারী হরিজনদের ডেকে বলেন, যাদের নিয়োগ হয়েছে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তাদের কাগজপত্র যাচাই করা হবে।কাগজ সঠিক না হলে চাকুরী এমনিতেই বাতিল হবে।এরপর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোতাকাব্বীর আহমেদ এর কাছে হরিজন ঐক্য পরিষদের নেতাকর্মীগণ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/১৬ই আগস্ট, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:১৫