২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ২:১২

তোপের মুখে সাবিক

 

স্পোর্টস ডেস্ক : নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পড়ার টেবিলে ফেরত যেতে বলে তোপের মুখে পড়েছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটার সাকিব আল-হাসান৷ যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে দেয়া স্ট্যাটাস মুছে আবার ভিডিও ম্যাসেজ পোস্ট করেন তিনি৷ তবে তাতেও গলছে না ‘ভক্তদের মন৷

দেশের বিভিন্ন আন্দোলন নিয়ে জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়দের প্রকাশ্য মন্তব্য বাংলাদেশে বিরল৷ তো প্রেস কনফারেন্সের বাইরে খেলা নিয়েও খুব একটা কথা বলতে চান না৷ সেই সাকিবের দেশের আন্দোলন নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস অবাক করেছে অনেককেই৷ সাকিব ভক্তরা তাই ফেসবুকে ধুয়ে দিচ্ছেন টাইগার অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে।

নিজের ভ্যারিফয়েড ফেসবুক পেজ থেকে বাংলা এবং ইংরেজি, দুই ভাষায় দেওয়া স্ট্যাটাসে ‘তরুণ ফ্যানদের` উদ্দেশ্য করে সাকিব বলেন, ‘‘সারাদেশের ছাত্রছাত্রীরা দোষীদের শাস্তি দাবি ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছে, তখন গর্ববোধ করেছি বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে৷ দেশে থাকলে আমিই তোমাদের অটোগ্রাফ নেয়ার জন্য চলে আসতাম৷“

কিন্তু ‘ফ্যানদের` আপত্তি সাকিবের স্ট্যাটাসের শেষ অংশ নিয়ে৷ সেখানে তিনি শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‘‘এ অবস্থায় তোমাদের কাছে বিনীত অনুরোধ করবো, ক্লাসে ফিরে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করতে৷“ তবে সড়কে অব্যবস্থাপনা, শিক্ষার্থীদের মৃত্যু বা দেশের অন্যান্য সংকট নিয়ে কখনই কথা না বলে সাকিব আল হাসান হঠাৎ এত ‘সচেতন` কেনো হয়ে উঠলেন, সে নিয়ে ‘বিস্ময়` প্রকাশ করেছেন প্রায় সবাই৷

এই স্ট্যাটাসকে অনেকেই সাকিবের ভবিষ্যতে খেলার মাঠ থেকে রাজনীতির মাঠে নামার প্রস্তুতি হিসেবে দেখছেন৷ একসময় সাকিবের ‘ডাই হার্ড ফ্যান` থাকলেও এই স্ট্যাটাসের ফলে নিজেকে ‘ডাই হার্ড হেটার` দাবি করেন অনেকে৷ তার স্ট্যাটাসে প্রায় ৩০ হাজারের মতো সমালোচনামূলক কমেন্ট পোস্ট হওয়ার পর তা মুছে ফেলেন সাকিব৷ এবার পোস্ট করেন একটি ভিডিও ম্যাসেজ৷ এক মিনিট ২৭ সেকেন্ডের এ ভিডিওতে তিনি ‘ভক্তদের` ভুল না বোঝার আহ্বান জানিয়েছেন৷

তবে তাতেও মন গলেনি সাকিবের ‘ভক্তদের`৷ ভিডিওতেও কমেন্টদাতারা ‘জনপ্রিয় খেলোয়াড়ের` চেয়ে ‘ভবিষ্যৎ সংসদ সদস্য` হিসেবেই তাঁকে মূল্যায়ন করছেন৷

সূর্ত্র: ডয়েচে ভেলে

কিউএনবি/রেশমা/৪ঠা আগস্ট, ২০১৮ ইং/সকাল ১১:১৫