১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৩৪

তৃণমূলকে যে বার্তা দিলো বিএনপি

 

ডেস্কনিউজঃ সংগঠন মজবুত করে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশের অপেক্ষায় থাকার জন্য তৃণমূলকে নির্দেশ দিয়েছে বিএনপি। আন্দোলন ও ভোটের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়ার বিষয়টিও রয়েছে কেন্দ্রের এই নির্দেশনায়।

শুক্রবার (৩ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুরু হওয়া তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় দলটির শীর্ষ নেতারা এ নির্দেশনা দেন। প্রথম পর্বে রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

বিকেল সাড়ে ৪টায় এ রিপোর্ট লেখার সময় বরিশাল ও খুলনা বিভাগের জেলা নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছিলেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা।

মতবিনিময় সভায় তৃণমূল নেতাদের কথা শুনছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. মঈন খান, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বরচন্দ্র রায় ও আমীর খসরু মহামুদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করছেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি। তার সঙ্গে রয়েছেন দলের সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও বেলাল আহমেদ।

তৃণমূল নেতাদের মধ্যে প্রত্যেক জেলার সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, ১ নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকরা সভায় বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকরাও রয়েছেন তৃণমূলের সঙ্গে এই মতবিনিময় সভায়।

সভা সূত্রে জানা গেছে, যেসব জেলায় কমিটি রয়েছে, সেসব জেলায় সংগঠন আরও মজবুত করে ভোট ও আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত হতে বলা হয়েছে। আর যেসব জেলায় এখনও কমিটি হয়নি, সেসব জেলায় দ্রুত কমিটি করে কেন্দ্রে জমা দিতে বলা হয়েছে।

পাশাপাশি খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন ও ভোটের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নিতেও বলা হয়েছে তৃণমূলকে। লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশ পেলেই মাঠে নামতে হবে সবাইকে। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে দাবি আদায়ে সোচ্চার হতে হবে।

জানতে চাইলে ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল  বলেন, ‘সাংগঠনিক আলোচনার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল মতবিনিময় সভা। তারপরও প্রয়োজনীয় কিছু দিকনির্দেশনা আমাদেরকে দেওয়া হয়েছে— যেটা সবসময় দেওয়া হয়ে থাকে।’

তৃণমূল থেকে সুনির্দিষ্ট কিছু বিষয় তুলে ধরা হয়েছে আজকের মতবিনিময় সভায়। এর মধ্যে অন্যতম খালেদা জিয়ার মুক্তি। তৃণমূল নেতাদের পরমর্শ, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি ও তার মুক্তি ছাড়া নির্বাচনে যাওয়া যাবে না।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে আমাদের কতকগুলো দাবি তো আগে থেকেই ছিল। তার সঙ্গে এখন যোগ হয়েছে ম্যাডামের মুক্তি। এসব বিষয় নিয়েই মতবিনিময় সভায় কথা হয়েছে। আমরা আমাদের কথা বলেছি। কেন্দ্র তাদের মতো করে আমাদের দিকনির্দেশনা দিয়েছে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সভায় মূলত তৃণমূল থেকে আসা ‘সুপার ফাইভ’ নেতাদের বক্তব্য শুনছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। তাদের বক্তব্য নোট রাখা হচ্ছে। পরবর্তী সময় দলের সর্বোচ্চ ফোরামে আলোচনার মাধ্যমে বক্তব্যের সারাংশ তৈরি করে সেটা পাঠানো হবে তারেক রহমানের কাছে। এরপর তারেক রহমানের কাছ থেকে আসা দিকনির্দেশনা জানিয়ে দেওয়া হবে তৃণমূল নেতাদের।

 

কিউএনবি/বিপুল/৩রা আগস্ট, ২০১৮ ইং/রাত ৯:৪৭