১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:৫০

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ঠাকুরগাঁওয়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

নিউজ ডেস্কঃ  নিরাপদ সড়ক, বাস চালকদের ফাঁসি, মন্ত্রীদের দায়িত্বজ্ঞানহীন বক্তব্য না দিতে, শিক্ষার্থীদের বাস ভাড়া অর্ধেক করতে এবং সড়কের নিরাপদ ভ্রমনে সরকারের উদ্যোগ গ্রহণের দাবীতে ঠাকুরগাঁওয়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত শহরের কেন্দ্রবিন্দু ঠাকুরগাঁও চৌরাস্তায় এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়।

স্কুল, কলেজ বন্ধ ঘোষনার পরও ঠাকুরগাঁও শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শত শত শিক্ষার্থী মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়।

শহরের চৌরাস্তা থেকে মানবন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিলটি খন্ড খন্ডভাবে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। বিক্ষোভ মিছিল থেকে “আই ওয়ান্ট জাস্টিজ” শ্লোগানে সারা শহর প্রকম্পিত হয়ে ওঠে। এ সময় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ একাত্ত্বতা ঘোষনা করেন।

আন্দোলনরত শিক্ষাথীরা জানান, দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় দায়ী বেপরোয়া ড্রাইভারকে ফাঁসি ও নৌ-পরিবহন মন্ত্রীকে নিঃশ্বর্ত ক্ষমাসহ আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত লাগাতার আন্দোলন চলবে বলে ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

প্রসঙ্গত, গত রোববার ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। বিক্ষোভ কর্মসূচী থেকে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে কয়েকদফা দাবি জানান সাধারন শিক্ষার্থীরা। দাবিগুলো হলো- দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় দায়ী বেপরোয়া ড্রাইভারকে ফাঁসি দিতে হবে। নৌ-পরিবহন মন্ত্রীকে নিঃশ্বর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। শিক্ষার্থীদের চলাচলে এমইএস ফুটওভার ব্রিজ বা বিকল্প নিরাপদ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। প্রত্যেক সড়কের দুর্ঘটনা প্রবণ এলাকায় স্পিড ব্রেকার দিতে হবে। সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্র-ছাত্রীদের দায়ভর সরকারকে নিতে হবে। শিক্ষার্থীরা বাস থামানোর সিগন্যাল দিলে- থামিয়ে তাদেরকে নিতে হবে। শুধু ঢাকা নয়, সারা বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে। ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় চলাচল বন্ধ ও লাইসেন্স ছাড়া চালকরা গাড়ি চালাতে পারবেন না এবং বাসে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়া যাবে না।