২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ১১:৩৩

পীরগঞ্জে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে জমি দখলের চেষ্টা ব্যাপক সংঘর্ষে আহত ১০- গ্রেফতার ৩

 

গীতি গমন চন্দ্র রায়,পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার নারায়নপুর প্রধান পাড়া এলাকায় পৈত্রিক জমি জবর দখল নিতে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিযুক্ত করায় ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে।সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের ১০ জন আহত হয়েছে।থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং ১ গ্রুপের ৩ জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার পূর্বেই সন্ত্রাসীদের দুই টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছে এলাকার ক্ষুদ্ধ জনতা।এ নিয়ে ঐ এলাকায় থম থম বিরাজ করছে। ঐ দিন রাতেই এক পক্ষের খয়রাত আলী তিনি পীরগঞ্জ থানায় নুরুজ্জামানকে ১নং আসামী করিয়ে মোট ১৭ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে।মামলার বাদী খয়রাত আলীর মামলায় বর্ণিত এজাহারে উল্লেখ্য করেছেন নিজ পরিবারের মধ্যে পৈত্রিক জমিজমা নিয়ে নুরুজ্জামান ও তার পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসত।

বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য স্থানীয় ভাবে ও থানায় দফায় দফায় আপোষ মিমাংসা বসলেও তা নিষ্পত্তি হয়নি।পক্ষান্তরে খয়রাত আলী ও তার পরিবারের লোকজন ভোগদখলীয় সম্পত্তিতে গত ১৬ জুলাই আমন চারা রোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছিল।এর কিছু সময় পরে ১নং বিবাদী নুরুজ্জামান তার পরিবার সহ পার্শ্ববর্তী রানীশংকৈল উপজেলার কয়েক জন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের একত্র করিয়ে বাদী খয়রাত আলীর জমিনে গিয়ে আক্রমণ চালায়। ব্যাপক আক্রমণ সংঘর্ষে খয়রাত আলীর ৫ জন ও নুরুজ্জামানের ৫ জন ব্যক্তি আহত হয়।

পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছাঁর আগেই স্থানীয় লোকজন জানতে পারে নুরুজ্জামান ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে জমি দখলের চেষ্টা করে এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটার ফলে সন্ত্রাসীদের উত্তম মধ্যম দিয়ে তাদের দুইটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে।পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে মিস্টার, জিল্লুর, গুনু মোহাম্মদ, মাসুদা ও ইতি আক্তার কে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ঐ দিন রাতে স্থানীয় নেতার সহায়তায় মাসুদা ও ইতি আক্তার কে ছেড়ে দেয় পুলিশ।পরে খয়রাত আলী চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাদী হয়ে তার জামাতা মজিবর রহমানকে দিয়ে পীরগঞ্জ থানায় একটি এজাহার লিপি বদ্ধ করান।

এজাহারে নুরুজ্জামান, নুরুল ইসলাম, বাবুল হোসেন, মুক্তা, মাসুদা, ইতি আক্তার,বেলী আক্তার,আব্বাস আলী,জিল্লুর রহমান,রাসেল রানা, মামুন,আহসান হাবীব,আরমান,মুঞ্জুর আলম,মিস্টার আলী,গুনু মোহাম্মদ,বাহারাম আলী’র বিরুদ্ধে অবৈধ জনতাবদ্ধে দলবদ্ধ হইয়া হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট করিয়া গুরুতর কাটা জখম শ্লীলতাহানি, ভয়ভীতি,হুকুমদানের অপরাধে ১৪৩/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৫৪/৫০৬/১১৪/৩৪ প্যানাল কোর্টে একটি মামলার রুজু করে।

মামলা নং- ২৪, তাং- ১৬/০৭/২০১৮ইং। এদিকে উভয় পক্ষের গুরুতর আহত ব্যক্তিদের মধ্যে কেউ পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও কেউ দিনাজপুর মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীনে রয়েছে বলে একটি সূত্র জানায়। এ ঘটনা ঘটার পরে বাদী মোঃ খয়রাদ আলী চরম অতঙ্কে দিন কাটান বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। বিষয়টি পীরগঞ্জ উপজেলায় ব্যাপক আলোরণ সৃষ্টি হয়েছে।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২১শ জুলাই,২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:৩৩