১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ২:১৭

ভোলাহাটে বাল্য বিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

 

আলি হায়দার, ভোলাহাট(চাঁপাইনবাবগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ ভোলাহাটে বাবা-মা তাদের পরকীয়া প্রেম পাকাপোক্ত করতে বাল্যবিয়ের পিঁড়িতে বসিয়েছে ছেলে মেয়েকে। খবর পেয়ে শুক্রবার দুপুরে ভোলাহাট উপজেলা নির্বাহীঅফিসার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের দায়িত্বে থেকে আব্দুল্লাহ আলমামুন এসআই গোলাম রাব্বানী ও সঙ্গী পুলিশ সদস্য নিয়েমোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে হানা দেন পাত্রির বাড়ীতে।ঘটনাটি ঘটে উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান,তখন ধুমধাম খাওয়ার পরিবেশন চলছিলো। মোবাইল কোর্টের খবরেঅতিথিরা দিকবিদিক পালিয়ে যায়। মোবাইল কোর্টে ধরা পড়েন বরচরধরমপুর গ্রামের রুকুর ছেলে মিজানুর রহমান(১৪) কনে ৭ম শ্রেনীপড়–য়া মৃতঃ ইলিয়াস আলীর মেয়ে সুখি(১৩) ও কনের মা মৃতঃইলয়াস আলীর স্ত্রী নুরবানু(৪০)। এদিকে বরের বাবা রুকু আটকেরখবর পেয়ে ঘটনাস্থ থেকে ছিটকে পড়েন। স্থানীয়রা জানান, বরের বাবা রুকু ও কনের মা নুরবানু দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়েহাবুডুবু খাচ্ছিলো। তাদে প্রেম পাকাপোক্ত করতেই তাদের অপ্রাপ্তবয়সের ছেলে মেয়ের বিয়ে দেয় দেড় মাস পূর্বে রহনপুরে গিয়ে। ঐবিয়ের খাওয়া দাওয়ার আয়োজন করে শুক্রবারে। তবে পাত্রীর পক্ষ থেকে বলাহয় ১৩ বছরের এ শিশু মেয়ে পালিয়ে গিয়ে তার বর মিজানুরকেস্বেচ্ছায় বিয়ে করেছে।

এদিকে মোবাইল র্কোট তাদের আটক করেউপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে নিয়ে এসে নির্বাহীম্যাজিষ্ট্রেটের দায়িত্বে থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারআব্দুল্লাহ আল মামুন আটকৃতদের বিশেষ শর্ত দিয়ে স্থাণীয়জনপ্রতিনিধিদের জিম্মায় মুক্তিদেন। অপরদিকে একই দিনে উপজেলারবাহাদুরগঞ্জ গ্রামের আহাসান আলীর ১৭ বছর বয়সের এইচএসসিপড়–য়া মেয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেব্যাল্যবিয়ে ঠেকিয়েছেন উপজেলা র্নিবাহী অফিসার আব্দুল্লাহআল মামুন।

 

 কিউএনবি/বিপুল/২০শে জুলাই, ২০১৮ ইং/ রাত ৮:৫৩