১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৪:৫২

মাদারীপুর ঝাউদীতে জামায়েত নেতার ব্যবহারে অতিষ্ট শিমুলতলার মানুষ

 

মাদারীপুর প্রতিনিধ: মাদারীপুর সদর উপজেলার ঝাউদী ইঊনিয়নের ছালাম মোল্লার বিরুদ্ধে এলাকায় ভুমিদস্যু হিসাবে জোরপুর্বক অন্যের জমি দখল, হত্যার হুমকি ও নারী নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

মাদারীপুর সদর উপজেলার পাঁছখোলা ইউনিয়নের অন্তগত হেমায়েত মুন্সী ঢাকা মহানগর জামায়েত ইসলামী দলের একজন আমীর। হেমায়েত মুন্সী রাজাকার আলী আহসান মুজাহিদের একজন ঘনিষ্ট বন্ধু ছিল। তাই হেমায়েত জামায়েত ইসলামী দলের একজন দুরধর্শ ক্ষমতাশালী ব্যক্তি তাহার আপন দুলাভাই ছালাম মোল্লা। এই ছালাম মোল্লা শিমুলতলার একজন সক্রিয় জামায়েত কর্মী।

শিমুলতলা গ্রামের এক অসহায় হিন্দু মহিলা মধুমালা মন্ডল, স্বামী: মৃত্যু বলরাম মন্ডল এর ক্রয়কৃত ৩৭৭ নং কুলপুদ্দি মৌজার ৯১ নং খতিয়ানের ৪৫৫ নং গং দাগের ৬০ শতাংশ জমি বিগত ১৫ বছর ধরে জোর পুর্বক ভোগ দখল করে আসছে সালাম মেল্লা। মধুমালা মন্ডলের মেয়ে রুক্কি বিবি দলিল পত্র নিয়ে দারে দারে ঘুরেও মায়ের স্পত্বি রক্ষা করে দেখে জেতে পারেনী। তিনি হঠাতৎ প্রায় মাস খানেক হয় মৃত্যু বরন করেন।


এবিষয়ে রুক্কি বিবির মেয়ে কনিকা বিবি (৪৫) বলেন, আমার মায়ের ক্রয়কৃ সম্পত্বি জাময়েত নেতা ছালাম মোল্লা জোরপুর্বক দখল করে খাইতেছে,আমরা জমি চাইতে গেলে আমদের বাড়ি ঘর উচ্ছে করে দিবে এবং মৃত্যুর হুমকি দেয়,আমরা হিন্দু বলে আমদের দেখার কেউ নেই।আমার মায়ের সম্পত্বি ফিরে পেতে আমি সরকারের কাছে দাবী জানাই।

স্থানীয় বোরহান মোল্লা বলেন,রুক্কি বিবির সম্পত্বি মাদারীপুর সাবেক বনিক সমিতির সভাপতি শিরাজুল ইসলাম বাচ্চু ভুইয়া শালিশ সভা করে রুক্কি বিবির জমি পরিমাপ করে কাটাতারের বেড়া দিয়ে যায়। বিএনপি সরকারের আমলে ছালাম মোল্লা জোরপুর্বক রুক্কি বিবির সম্পদ দখল করে নিয়ে নেয়।

এদিকে একই এলাকার জনৈক মন্টু ফকিরের কাছ থেকে ১৫০ নং ব্রাক্ষন্দি মৌজার এস এ ৩২৫.৩২৬ ও ৩২৭ নং দাগে ০৭ শতাংশ জমি ছালাম মোল্লা ক্রয়করে ০৮ শতাংশ জমি রেকর্ড় করে নিয়ে আরো ২০ শতাংশ জমি জোর পূর্বক দখল করে পুকুর বানিয়ে ভোগ দখল করে আসছে।

ভুক্তভুগী মন্টু ফকিরের ছেলে হান্নান ফকির বলেন,এই জমি নিয়ে একাধিক বার স্থানীয় সালিশ শবা হয়েছে, এলাকার গন্যমান্য ও চেয়ারম্যান শালিশ করে জমির পরিমাপ করে দিলেও জমিতে বালু ভরাট করতে গেলে সালিশ অমান্য করে ছালাম মোল্লা বাধা প্রদান করে এবং বিভিন্ন ধরনের মামলার ভয় ভিতী ও মৃত্যুর হুমকি প্রদান করে।

ভুক্তভুগী শিমুলতলার স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ মোয়াজ্জেম মোল্লা বলেন, ১৫০ নং ব্রাক্ষন্দি মৌজার এস এ-৩০৩ দাগে মোট জমি ৬৯ শতাংশ ইহার মধ্যে ছালাম মোল্লার ক্রয়কৃত ২০ শতাংশ জমি। অথচ তিনি ভোগ দখল করে আছে ৩৬ শতাংশ জমি। একই দাগের ৬৯ সতাংশ জমির মধ্যে ১৫ শতাংশ জমি আমি ক্রয় করি ছাব কবলা মূলে। এই ১৫ শতাংশ জমির থেকে ৪ শতাংশ জমি আমি মসজীদের নামে দান করি। এবং স্থানী চেয়ারম্যান,মেম্বার,গন্যমান্য ব্যক্তিরা ছালাম মোল্লা ও সকলের উপস্থিতি থোকে জমি চিহ্ন দিয়ে পরিমাপ করা হয়। ছালাম মোল্লা ঐ চিহ্ন অমান্য করে, তিনি ২০ শতাংশ এর স্থলে ৩৬ শতাংশ জমি ভোগ করার আশায় আমার নামে মিথ্যা মামলা দায়ের ও বিভিন্ন পত্রিকায় মিথ্যা অপবাদ প্রকাশ করিতেছে,আমার নামে যে সব অভিযোগ উঠেছে তা সম্পুর্ন মিথ্যা ভিত্বিহীন ও বানোয়াট আমাকে হেয় প্রতিপন্য করার জন্য এসব বানোয়াট মিথ্যা প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। সালাম মোল্লা গত ডিশেম্বার মাসের ২০১৭ইং সালের এক রাতে বিউটি বেগম (৩৬) নামের এক প্রতিবেশি গৃহবধুর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এ ব্যাপারে মাদারীপুর আদালাতে মামলা হয়, যার নং পি-৮৬৭/১৭ দায়ের হলে সালাম মোল্লা স্থানীয় সালিশের বিচারে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা প্রদানে বাধ্য হন বলে মোয়াজ্জেম মোল্লা যানায়।

তবে এ ব্যাপারে ছালাম মোল্লার বাড়িতে গিয়ে একাধিকার বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। এছাড়া তার পরিবারের কাছে মোবাইল নাম্বার চাইলে বলেন তাহার কাছে কোন মোবাইল নেই,তিনি ঢাকতে গেছেন বলে যানায়।

মাদারীপুর ৫নং ওয়ার্ডের পৌর কমিশনার আজগোর বেপারী বলেন,আমরা মোয়াজ্জেম মোল্লা ও সালাম মোল্লাকে নিয়ে একাধিক বার সালিশ সভায় বসেছি, কাগজ পত্র দেখে সঠিখ ভাবে জমি পরিমাপ করে দেওয়ার চেষ্ট করেছি সেখানে বর্তমান চেয়ানম্যান,সাবেক চেয়ারম্যানসহ এলাকার অনেক গন্যমান্য ব্যক্তিরাও ছিলেন। একে একে পাঁচবার সালাম মোল্লা সালিশ অমান্য করেছে, মোয়াজ্জেম মোল্লার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ পত্রিকায় তুলেছে তা সঠিক নয়।

ঝাউদি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান, মোঃ দবির হাওলাদার বলেন, মোয়াজ্জেম মোল্লার বিরুদ্ধে সালাম মোল্লা যেসব অভিযোগ পত্রিকায় তুলেছে তা সত্যনয়, আমরা স্থানী গন্যমান্য বর্তমান চেয়ারম্যানসহ অনেকইে এবিষয়ে সমাধান করার জন্য বসেছিলাম,এবং কাগজ পত্র দেখে সঠিক সমাধান দিয়েছি তা সালাম মোল্লা সালিশ অমান্য করে সে আদালাতে সরনাপন্য হয়েছে।

 

কিউএনবি/বিপুল/২০শে জুলাই, ২০১৮ ইং/ সন্ধ্যা ৬:১২