২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৪:১৮

মেঘনায় নিখোঁজ নটরডেম শিক্ষার্থী প্রাপ্তির লাশ উদ্ধার

 

ডেস্কনিউজঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার মেঘনা নদীতে নিখোঁজ নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার (১৫ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে আশুগঞ্জ ব্রিজের নিচে একজন নারীর লাশ ভাসতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে বেলা ১১টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা লাশটি উদ্ধার করেন।

আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী বাইন হীরা জানান, লাশটি নিখোঁজ শিক্ষার্থী সানজিদা বিনতে তানভির প্রাপ্তির। তবে পরিবারের সদস্যরা এসে এখনো লাশ সনাক্ত করেননি।

এর আগে শনিবার (১৪ জুলাই) বিকেলে আশুগঞ্জ উপজেলার সোনারামপুর চর এলাকায় মেঘনা নদীতে গোসল করতে নেমে নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী নিখোঁজ হন। এরা হলেন ঢাকার মগবাজার এলাকার ইসরাকুল মেহরাব (২২) ও লক্ষ্মীবাজার এলাকার সানজিদা বিনতে তানভির প্রাপ্তি (২১)। এরা দুজনেই নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকা থেকে নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত শিক্ষার্থী শনিবার বিকেলে আশুগঞ্জ উপজেলার মেঘনার বুকে জেগে উঠা চরসোনারাম এলাকায় ঘুরতে আসেন। শিক্ষার্থীরা চরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখার পর চরের উত্তর-পশ্চিম পাশে মেঘনা নদীতে গোসল করতে নামেন। গোসল করার একপর্যায়ে মোবাইল ফোনে সেলফি তোলার সময় প্রাপ্তি পানিতে কাত হয়ে পড়ে যান। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই তিনি স্রোতের টানে ভেসে যান। তাকে উদ্ধার করে ঝাঁপিয়ে পড়েন মেহরাব। কিন্তু তিনিও তীব্র স্রোতের টানে ভেসে পানিতে তলিয়ে যান। সঙ্গে থাকা বাকি পাঁচ শিক্ষার্থীও প্রাপ্তি ও মেহরাবকে উদ্ধার করতে নামলে তারাও স্রোতের টানে ভেসে যান। তবে স্থানীয়রা দ্রুত এই পাঁচজনকে উদ্ধার করতে পারলেও পাওয়া যায়নি মেহরাব ও প্রাপ্তিকে।

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিখোঁজদের উদ্বার কাজ শুরু করেন।

এর আগে শনিবার দুপুরে কক্সবাজারের চকরিয়ার মাতামুহুরি নদীতে গোসল করতে নেমে মারা গেছে পাঁচ স্কুলছাত্র। রোববার (১৫ জুলাই) সকাল নাগাদ তাদের সবার লাশ উদ্ধার করা গেছে।

 

কিউএনবি/বিপুল/১৫ই জুলাই, ২০১৮ ইং/দুপুর ১২:২০