১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৭:০৭

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে দুর্ধর্ষ ডাকাতি : পুলিশের ভুমিকা রহস্যজনক

 

শেখ মোহাম্মদ রতন, ষ্টাফ রিপোর্টার : মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার নওপাড়া গ্রামে শেফালী বেগমের (৪৬) বসত বাড়িতে গত ২৪ এপ্রিল(২৪-০৪-২৮) তারিখের গভির রাতে এলাকার ১১ জনের একটি সংঘবদ্ধ ধারালো অস্ত্রধারী ডাকাত দল হামলা চালিয়ে লক্ষাধিক টাকা ও মালামাল লোটাপাট করেছে।

এ ঘটনার পরে শেফালী বেগম থানায় ও এলাকায় কোন বিচার না পেয়ে ভুক্তভুগী শেফালী বেগম বাদি হয়ে মুন্সীগঞ্জ আদালতের আশ্রয় নেন। এ সময় মুন্সীগঞ্জ ৬নং আমলী আদালের বিজ্ঞ সিনিয়র ম্যাজিষ্ট্রেট বাকি বিল্লা তার লিখিত আবেদনটি আমলে নিয়ে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং থানার ওসিকে এ মামলার তদন্ত রিপোর্ট আদালতে পেশ করতে নির্দেশ দেন।যার সি.আর মামলা নং-০৬/২০১৮। ধারা ৩৯৫/৩৪ দন্ড বিধি।

আদালতে শেফালী বেগমের দেয়া লিখিত তথ্যমতে, ডাকাত দল এ সময় তার পরিবারকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে হাত-পা ও মুখে কাপর বেধেঁ জিম্মি করে নগত ৫০ হাজার টাকা, ৩০ হাজার টাকা মুল্যেও একটি গরুর ঘড়, ২৫ হাজার টাকা মুল্যেও একটি রান্না ঘড়সহ শেফালির স্বামী মো. দাদন মোল্লার ব্যবসায়ীক দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ১০ হাজার টাকাসহ দোকানে থাকা ২০ হাজার টাকার মালামাল সহ মোট ৯ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকাসহ প্রায় ১ লক্ষাধীক টাকা লুটে নিয়ে যায় ডাকাতদল।

ডাকাত দলেরা হচ্ছে, ১) আব্দুর রহমান খান(৬০), ২) মিজান খান(৩৪), ৩) রাসেদুল ইসলাম আকাশ(২৪), ৪) মাসুদ খান(৩৮), ৫) আর্শাদ খান(৩৮), ৬) তোয়াজ খান(৪২), ৭) সুরুজ্জামান শেখ (৩২), ৮) শরিফ মোল্লা(৩৩), ৯)আলী আরশাদ তালুকদার(৪২), ১০) হুমায়ুন শেখ(৪২), ১১) সালাউদ্দিন সরদার(৫০)।

শেফালী বেগম জানান, এ সময় ডাকাতদল শেফালি বেগমের পরিবারের সবকিছু ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। এতে সর্বশান্ত হয়ে হরেছে অসহায় গরিব এ পরিবারটি। পরিবারটি এ ঘটনার বিচার চেয়ে প্রথমে লৌহজং থানায় গেলে সন্ত্রাসী-ডাকাতরা স্থানীয় ক্ষমতাশীন প্রভাবশালী নেতার লোকজন হবার কারনে পুলিশ তাদের ফিড়িয়ে দেন।

ডাকাতরা এখনো এলাকায় পুলিশের সামনে ও প্রকাশ্য দিবালোকে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং মামলা তুলে নিতে প্রতিদিন প্রাননাশের হুমকি দিচ্ছে বলে শেফালী বেগম ও তার পরিবার অভিযোগ করেন।

এ প্রসঙ্গে লৌহজং থানার অফিসার ইনচার্জ-(ওসি)মোহাম্মদ লিয়াকত হোসেন জানান, আদালতের নির্শেদ অনুযায়ী শেফালী বেগমের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনার তদন্ত চলছে।তদন্তের রিপোর্ট দ্রুত আদালতে পাঠানো হবে। তাছাড়া আসামিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টায় পুলিশ মাঠে কাজ করছে।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৯ই জুলাই, ২০১৮ ইং/বিকাল ৪:৫৮