১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ১১:১১

দৌলতখানে বিয়ে বাড়িতে খাবার নিয়ে কনে ও বর পক্ষে সংঘর্ষ আহত-১০, গ্রেফতার -২

 

মামুন হাওলাদার,দৌলতখান ভোলা : ভোলার দৌলতখানে বিয়ের অনুষ্ঠানে খাবার নিয়ে কনে ও বড় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে নারীসহ ১০ জন আহত হয়েছে। রবিবর দুপুর ৩ টায় পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের ইমাম উদ্দিন পাটোয়ারী বাড়িতে বরপক্ষকে আপ্যায়নরে এক র্পযায়ে খাওয়া নিয়ে দু পক্ষরে লোকজনের মধ্যে এ সংঘর্ষ ঘটে।এ ঘটনায় পুলিশ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে।

জানা যায়, ইমাম উদ্দিন পাটোয়ারী বাড়ির রফিকুল ইসলামের মেয়ে নুরতাজ বেগমের সাথে ভোলার দক্ষিণ চরনাবাদ পৌরসভা ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা নুরইসলামে ছেলে দিদার এর বিয়ে ঠিক হয়।দুপুরে কনেপক্ষ বাড়িতে খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করা হয়।এসময় কনেপক্ষ ও বরপক্ষের লোকজনে মধ্যে খাবার নিয়ে কথার কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ বাঁধে।

আহত দিদার ও মোসলেম জানান, রবিবার দুপুর ৩ টার দিকে কনে পক্ষের বাড়িতে এসে আমরা উপস্থিত হই।প্রায় ২ ঘন্টা পার হয়ে গেলেও তারা আমাদের খাবার দিচ্ছিলো না।আমাদের সাথে বাচ্চা ছিল তারা খাবারের জন্য কান্নাকাটি করছিল।বিষয়টি কনের মা বিবি মরিয়ম কে জানালে তিনি তার নিজ ঘর থেকে চলে যান।

তার কিছুক্ষন পর খাবার দেয়া হলে , কনের চাচা সুফিয়ান ও বাছেদ খাবার কাদিম করার সময় তাদের সাথে খাবার দেরিতে দেওয়া নিয়ে কথার কাটাকাটি হয়।এরপর তারা আমাদের উপর হামলা চালায়।

অন্যদিকে কনের মা ও মামাতো ভাই তারেক জানান, বর পক্ষ থেকে লোকজন আসলে আমরা খাবার দেই।কিন্তু তাদের নাকি খাবার কম দেওয়া হয়েছে। পরে আমরা বলি ভাই খাবার অনেক আছে দেওয়া যাবে।এ নিয়ে তারা আমার মামা সুফিয়ান ও চাচা বাছেদ কে খাবারে প্লেট ছুড়ে মারে।

তাদের অনেক বুঝানোর চেষ্টা হয়, কিন্তু তারা কোন মতেই বুঝে নাই। পরে তারা সকলে মিলে আমাদের উপর হামলা ও ঘড় ভাংচুর চালায়। আহতদের মধ্যে চাদপুর এর ইব্রাহিম (৪৫) ও ভোলার ইকবাল(২০) বর্তমানে দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকলেও বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছে।

এব্যাপারে দৌলতখান থানা ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন জানান, স্থানী লোকজন খবর দিলে, আমি থানা থেকে ফোর্স পাঠিয়ে ঘটনা স্থান থেকে দু জন আটক করেছি।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২রা জুলাই, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:২৪