২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:৩৫

সেই প্রত্যাশা আজও পূরন হয়নি লক্ষ্মীপুরবাসীর

 

মু.ওয়াছীঊদ্দিন,লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিভাগের অন্তর্ভুক্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা লক্ষ্মীপুর। দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের প্রায় ২১ জেলার মানুষের সহজ যাতায়াত এ জেলার উপর দিয়ে। পরিতাপের বিষয় হলো সম্ভাবনাময় এ জেলা থেকে রাজধানী ঢাকায় যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম হলো সড়ক পথ। সড়ক পথও তেমন উন্নত না হওয়ায় চরম ভোগান্তির মধ্যদিয়ে রাজধানীতে যাতায়াত করে এ জেলার লাখ লাখ কর্মজীবি মানুষ।

গণমানুষের দাবীতে চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারী লক্ষ্মীপুর টু ঢাকা সরাসরি লঞ্চ সার্ভিস চালু হওয়ার কথা ছিল। বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল এমপি লঞ্চ সার্ভিসের উদ্বোধন করবেন বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার হয়ে ছিল। অথচ মেঘনা উপকূলীয় লক্ষ্মীপুরবাসীর সেই প্রত্যাশা আজও পূরণ হয় নি।

সেই প্রত্যাশা বাস্তবায়নের দাবীতে আবারো সরগরম হয়ে উঠেছে লক্ষ্মীপুরবাসী। ঢাকা টু লক্ষ্মীপুর লঞ্চ চাই পরিষদের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে নানা কর্মসূচী। ইতোমধ্যে জেলা শহর ছেঁয়ে গেছে “দাবী শুধু একটাই, ঢাকা-লক্ষ্মীপুর লঞ্চ চাই” এই স্লোগানের ব্যানার-পোস্টারে। অলি-গলি, অফিস-আদালত, বাস-ট্রাক, গাছপালাসহ প্রত্যেকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পৌঁছে গেছে ঢাকা টু লক্ষ্মীপুর লঞ্চ চাই পরিষদের এসব ব্যানার পোস্টার।

বুধবার জেলার বেশ কয়েকটি জায়গা ঘুরে দেখা যায় ঢাকা টু লক্ষ্মীপুর লঞ্চ চাই পরিষদের ব্যানার-পোস্টার। জানা গেছে, সংগঠনটির পক্ষ থেকে উত্থাপিত দাবীর সাথে একাত্মতা পোষণ করেছে জেলাবাসী।

পোস্টার ও ব্যানারে উল্লেখ করা হয়েছে, স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরও লক্ষ্মীপুরবাসী রাজধানীতে যাতয়াতের জন্য কোন বিকল্প পরিবহণ পায় নি।দেশের অন্য জেলায় লঞ্চ, ট্রেন, বিমানসহ অত্যাধুনিক পরিবহন পেলে; লক্ষ্মীপুরবাসী পাবে না কেন? কেন আমাদের অসুস্থ পিতা-মাতা আরামদায়ক পরিবহণের অভাবে উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হবে? কে দিবে এসব প্রশ্নের জবাব? আর চুপ থাকা নয়; জেগে উঠুন লক্ষ্মীপুরবাসী; আওয়াজ তুলুন বজ্রকন্ঠে।

ঢাকা টু লক্ষ্মীপুর লঞ্চ চাই পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার বলেন, কোন অদৃশ্য শক্তির কুপ্রভাবে গত ২৭ জানুয়ারি ঢাকা টু লক্ষ্মীপুর লঞ্চ সার্ভিস চালু হয় নি, তা আমাদের জানা নেই। মেঘনা উপকূলীয় লক্ষ্মীপুরের প্রায় ২০ লাখ মানুষের প্রাণের এ দাবী বাস্তবায়নের জন্য আমরা ঐক্যবদ্ধ।

ব্যানার-পোস্টার প্রচারের মাধ্যমে আমরা এ আন্দোলনকে গণআন্দোলনে পরিণত করবো ইনশাআল্লাহ। এছাড়াও ঢাকা টু লক্ষ্মীপুর লঞ্চ সার্ভিস চালু করার দাবীতে ঈদের পরে মানববন্ধন এবং প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রেরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৭ই জুন, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:৩৫