১৩ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৯শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৪:২৩

বড়াইগ্রামে দেড় ঘন্টা পরে নেয়া হলো স্নাতক পরীক্ষা

 

অমর ডি কস্তা,বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের বড়াইগ্রামে নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘন্টা পরে শুরু হয়েছে স্নাতক (পাস) গার্হস্থ্য অর্থনীতি বিষয়ের ফাইনাল পরীক্ষা। বুধবার উপজেলার বনপাড়া শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মহিলা অনার্স কলেজ কেন্দ্রে এমন ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনোয়ার পারভেজ এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। এদিকে কেন্দ্র সচিব ও ওই কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা জানিয়েছেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েই এই পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়েছে।

জানা যায়, বুধবার স্নাতক ফাইনাল পরীক্ষার গার্হস্থ্য অর্থনীতি বিষয়ের প্রথম পত্রের পরীক্ষা ছিলো।রুটিন অনুযায়ী সকাল ৯টায় পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা।এ বিষয়ের তিনজন পরীক্ষার্থী নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসলেও ওই বিষয়ের প্রশ্নপত্র তখন কেন্দ্রে পৌঁছায়নি।

পরে খবর পেয়ে ইউএনও কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে পরীক্ষার্থীদের একটি কক্ষে অপেক্ষা করতে বলেন।এ সময় তিনি নিজ দায়িত্বে জেলা সদরের একটি কেন্দ্র থেকে প্রশ্ন সংগ্রহ করে আনেন এবং নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘন্টা পরে সকাল সাড়ে ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়।

এ ব্যাপারে কেন্দ্র সচিব অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা জানান, প্রশ্নপত্র তার কেন্দ্রে পৌঁছায়নি। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের কন্ট্রোলারের সাথে যোগাযোগ করে এবং কন্ট্রোলারের অনুমতি নিয়ে প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার পর পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়েছে। তবে ওই তিন পরীক্ষার্থীদের একটু বিড়ম্বনা পোহাতে হয়েছে বলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

ইউএনও মো. আনোয়ার পারভেজ জানান, এসব পরীক্ষার্থীরা নির্ধারিত সময়ে ফরম পূরণ করতে না পারায় পরে শিক্ষা বোর্ডে গিয়ে ফরম পূরণ করেছিল।এ কারণে কেন্দ্রে তাদের কোন তথ্য ছিলো না।তবে এটা নিঃসন্দেহে একটি বড় ধরনের গাফিলতি।এ ধরণের গাফিলতির জন্য সংশ্লিষ্টদের কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হবে এবং নোটিশের জবাবের প্রেক্ষিতে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২৩শে মে, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:০৮