২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:০৮

শাক- সবজি সহ নিত্য পণ্যের বাজার লাগামহীন

স্টাফ রিপোটার : পবিত্র মাহে রমজান মাস কে কেন্দ্র করে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়াতে ও শাক সবজি সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম বেড়েছে বলে অভিযোগ করেছে ক্রেতারা।

রবিবার বিকালে জেলার কুমারখালী উপজেলার দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে বড় সপ্তাহিক বাজার যদুবয়রা জয়বাংলা বাজার সরেজমিন গেলে ক্রেতাদের কাছে জানতে চাইলে তারা জানায় নিত্য পণ্যের লাগামহীন মূল্য বৃদ্ধির অভিযোগ করেন ক্রেতারা।

ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়,লাল শাক,পুঁই শাক,ডাটা শাক,সবজি হিসেবে আলু, পটল, ঢেরস, মরিচ,বেগুন,শসা,ঝিঙে,কুমড়া,কাচা কলা সহ বিভিন্ন শাক সবজি ও মসলা কেজিতে বেড়েছে ১৫-২০ টাকা।
এছাড়াও মাছের বাজার ঘুরে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়,মাছের দাম কেজিতে ৩০ -৫০টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাজার ঘুরে জানা যায়,রমজানের আগে কেজিতে মরিচ ১৫-২০ টাকা হলেও বর্তমানে ৩০ টাকা,বেগুন ২০টাকা থেকে বেড়ে ৩০-৩৫ টাকা,শসা ২০ টাকা থেকে বেড়ে ৪০ টাকা,পটল ৩০টাকা থেকে বেড়ে ৪০টাকা,আলু১৫টাকা থেকে ২০ টাকা,কাঁচকলা ৬ টাকা থেকে বেড়ে ২০ টাকা,আঁদা ৬০ টাকা থেকে বেড়ে ১২০টাকা,লাল শাক জোড়া ১০ টাকা থেকে বেড়ে ১৮ টাকা,ওজতে ৫০ টাকা থেকে বেড়ে ৬০ টাকা,খর কচু শাক ১৫ টাকা থেকে বেড়ে ২০ টাকায় উপনিত হয়েছে।

দাম অপরিবর্তিত রয়েছে রমজানের আগে ও পরে বরবটি কেজি ৩৫ টাকা,ধুনে পাতা ৪০ টাকা,ডাটা শাক জোড়া ২০ টাকা,ঢেরস কেজি ৩০ টাকা,মিষ্টি কুমড়া কেজি ২০ টাকা।

অপরদিকে মাছের দাম রমজানে কেজিতে বেড়েছে রুই ১২০ টাকা থেকে বেড়ে ১৭০ টাকা,কাতল বড় ৩৫০ টাকা থেকে বেড়ে ৪২০-৪৫০ টাকা,সিলভার কার্প ৬০ টাকা থেকে বেড়ে ১০০ টাকা,বাটা ১২০ টাকা থেকে বেড়ে ১৪০ টাকা,পাঙাশ ৯০-১০০ টাকা থেকে বেড়ে ১২০ টাকা,ব্রিকেট ৮০ টাকা থেকে বেড়ে ১০০ টাকা,জাপানী ১৪০ টাকা থেকে বেড়ে ১৬০ টাকা,মাগুর ৪৮০-৫০০ টাকা থেকে বেড়ে ৫৫০ টাকা,মিনার্কাপ ১২০ টাকা থেকে বেড়ে ১৪০ টাকা,মৃগেল ১৪০ টাকা থেকে ১৮০ টাকা।
তাছাড়াও শাক সবজ্বি,মাছের দাম বৃদ্ধির সাথে তাল মিলিয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে মসলা গুলোর।জিরা ৩৭০ টাকা থেকে বেড়ে ৪০০ টাকা,তেসপাতা ১২০ টাকা থেকে বেড়ে ১৫০ টাকা,ধুনে গুড়া ৯০ টাকা থেকে বেড়ে ১২০ টাকা,মরিচের গুড়া ১৮০ টাকা থেকে বেড়ে ২০০ টাকা কেজিতে।দাম অপরিবর্তিত রয়েছে হলুদের গুড়া কেজি ১৬০ টাকা।

পবিত্র রমজান আসলেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম অপরিবর্তিত বা কমানো হলেও বাংলাদেশে কেন তার বিপরীত।কর্তৃপক্ষ কে বিষয়টা বিবেচনা করার আহবান জানিয়েছেন স্থানীয় জন সাধারন।

কিউএনবি/নিল/ ২০ মে/20:23