২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:২৭

গড়াই নদীতে বালি উত্তোলনে হুমকির মুখে শহর রক্ষা বাধ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া গড়াই নদীর গ্রাস থেকে রক্ষা পেতে বাঁধ নির্মাণ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। নাম দেয়া হয় শহর রক্ষা বাঁধ। সেই বাঁধটি আজ অবৈধ বালি ব্যবসায়ীদের কারণে হুমকির মুখে পড়েছে। বাধের নিজ থেকেই অবৈধভাবে উত্তোলন করা হচ্ছে দিনের পর দিন। তবুও অজ্ঞাত কারনে প্রশাসন রয়েছে নিরব!

কেউ বাধা দিতে গেলে পড়তে হয় কিছু নামধারী নেতার আগ্রাসনে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় কুষ্টিয়া মঙ্গলবাড়িয়া দুইটি স্পট থেকে তোলা হচ্ছে বালি। সেই বালি দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে পুকুর।
অবৈধ মিনি ড্রেজারটি ভাড়া করে নিয়ে এসে বালি উত্তোলন করে চলেছেন রাসেল নামের এক ব্যাক্তি বলে জানান বালি উত্তোলন কারীরা।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে রাসেল বলেন, এখানে বালি উত্তোলন করার জন্য ডিসি সাহেবের অনুমতি নেয়া আছে বলেই লাইন কেটে দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মো: জহির রায়হান বলেন, আমরা কাউকে অনুমতি দেয়নি, যদি কাউকে অনুমতি দেয় তা লিছের মাধ্যমে দেয়া হবে এবং তার প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র থাকবে । তিনি বিষয় দেখবেন বলে জানান।

এদিকে এভাবে অবৈধভাবে বালি উউত্তোলন করায় ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে চাপা ক্ষোভ। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে রাসেল কুষ্টিয়া শহর রক্ষা বাঁধ টি যেন ধ্বংস করতে উঠেপড়ে লেগেছেন বলে মন্তব্য স্থানীদের। একদিকে ক্ষমতাসীনরা তাদের উন্নয়নের প্রচার চালাচ্ছে অপরদিকে কিছু নেতার শুভাকাঙ্ক্ষী বলে পরিচিত ব্যক্তিরা এই উন্নয়নকে ধুলিস্যাৎ করতে উঠেপড়ে লেগেছে।

অবৈধভাবে মিনি ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের বিষয়ে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়নার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের লোকবল খুবই কম। একদিকে অভিযান চালালে অপরদিকে গিয়ে আবারও বালু উত্তোলন করছে। আমরা এইসব বালি উত্তোলনকারীদের সাথে পেরে উঠছে না।