২৭শে জুন, ২০১৯ ইং | ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সকাল ১০:২১

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করার আহ্বান শিক্ষকদের

 

ডেস্কনিউজঃ কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী এবং তাঁদের আত্মীয়-পরিজনকে হয়রানি না করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে লিখিত বক্তব্যে শিক্ষক সমিতির কার্যনিবাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আবদুস সামাদ এ আহ্বান জানান।

আবদুস সামাদ আরো বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে, তারা যেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের, নিরপরাধ কোনো ব্যক্তি এবং তাদের আত্মীয়-পরিজনকে কোনো হয়রানি না করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের প্রতি এই আহ্বান জানাচ্ছে যে, তাদের এই আন্দোলনকে কোনোরকম গুজবের ওপর ভিত্তি করে কোনো মহল যেন ফায়দা লুটতে না পারে, সেদিকে তাদের সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে।’

একই সঙ্গে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের কোটা সংস্কার আন্দোলনকে যুগোপযোগী ও যৌক্তিক মনে করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

বিশ্ববিদ্যালয়কে সচল রাখতে এবং শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখতে সংবাদ সম্মেলনে সবার সহযোগিতা চান শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম।

সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা সম্প্রতি দেশব্যাপী তুমুল আন্দোলন গড়ে তোলেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে ১১ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় সংসদে বলেন, ‘খুব দুঃখ লাগে দেখলাম, হঠাৎ কোটা সংস্কার নিয়ে আন্দোলন। এ আন্দোলনটা কী? সমস্ত লেখাপড়া বন্ধ করে রাস্তায় বসে থাকা। রাস্তার চলাচল বন্ধ করা। এমনকি হাসপাতালে রোগী যেতে পারছে না। কর্মস্থলে মানুষ যেতে পারছে না। লেখাপড়া বন্ধ। পরীক্ষা বন্ধ। এটা সমস্ত জায়গায় ছড়িয়ে পড়ল।’ তিনি বলেন, ‘যখন চায় না, তাহলে দরকার কী? কোটা পদ্ধতিরই দরকার নাই। যারা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী বা প্রতিবন্ধী, তাদের আমরা অন্যভাবে চাকরির ব্যবস্থা করে দিতে পারব।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা এটা (আন্দোলন) করছে, তারা অনেকে আমার নাতির বয়সী। তাদের কিসে মঙ্গল হবে-না হবে, আমরা কি তা কিছুই বুঝি না? তাদের কিসে ভালো হবে, আমরা তা জানি না?’

কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত ১২ এপ্রিল চলমান আন্দোলন স্থগিত করেন সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা।

এরপর গত ১৯ এপ্রিল রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবি সুফিয়া কামাল হল থেকে তিন ছাত্রীকে বের দেয় কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, অপতথ্য ছড়ানোয় তাদের হল থেকে বের করে দেওয়া হয়।

 

বিপুল /২৪.০৪.২০১৮ ইং /বিকাল ৫.২০

Please follow and like us:
0
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial