২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৪:৫০

ভা-ারিয়ায় ছাত্রী উত্যক্তের বাধা দেওয়ায় বখাটের হাতে মাদ্রাসা সুপার লাঞ্ছিত প্রতিবাদে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন

 

মোঃ মামুন হোসেন,পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় মাদ্রাসাছাত্রীকে উত্যক্তের বাধা দেওয়ায় অভিযুক্ত বখাটের হাতে মো. রুহুল আমীন হাওলাদার নামে এক মাদ্রাসা সুপার লাঞ্ছিত হয়েছে। বখাটে ওয়াহেদুল হাওলাদার ও তার নিকট স্বজনরা মিলে মাদ্রাসা চলাকালিন গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় ওই মাদ্রাসা সুপারের কক্ষে ঢুকে তাকে লাঞ্ছিত ও হুমকী দেয়।

বখাটে ও তার পরিবার কর্তৃক শিক্ষককে লাঞ্ছনার বিচার দাবি করে উপজেলার পশারিবুনিয়া ওয়ারেচ আফছারিয়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা আজ সোমবার ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

এসময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত বখাটের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।পশারিবুনিয়া ওয়ারেচ আফছারিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মো. রুহুল আমিন অভিযোগ করেন, বেশ কিছুদিন ধরে স্থানীয় পশারীবুনিয়া গ্রামের আব্দুস ছালাম হাওলাদার এর বখাটে ছেলে ওয়াহেদুল হাওলাদার ও তার কয়েক সহযোগি মিলে মাদ্রসায় যাওয়া আসার পথে ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে আসছিল।

তিনি বখাটেদেও নিবৃত্ত করতে এর প্রতিবাদ জানান।এতে বখাটে ওয়াহেদুল ক্ষিপ্ত হয়ে গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় মাদ্রাসা চলাকালিন সময় বখাটে ওয়াহেদুল এবং তার মা ফরিদা বেগমসহ তাদের কয়েক সহযোগি মাদ্রাসায় প্রবেশ করে মাদ্রাসা সুপারকে অকথ্য গালিগালাজ জামার কলার টেনে ধরে লাঞ্ছিত করে।

এক পর্যায় বখাটে ও তার সহযোগিরা মাদ্রাসা সুপারকে মামলা করলে প্রাণনাশের হুমকীও দেয়।এ ঘটনার প্রতিবাদ ও বখাটের বিচার দাবি করে মাদ্রাসার শিক্ষক কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ সমাবেশ করে। এসময় মাদ্রাসা সুপার লাঞ্ছিত ও বখাটেপনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত লাগাতার ক্লাস বর্জণের ঘোষণা দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে ভান্ডারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহাবুদ্দীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেন, ভূক্তভোগি মাদ্রাসা সুপার এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযুক্ত বখাটে ও তার সহযোগিরা গা ঢাকা দিয়েছে।তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২৩শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং/রাত ৮:০৪