১৯শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ২:৪৮

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে সেচ্ছাসেবক কর্মীর উপর দলবদ্ধ সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে ১০নং জাবরহাট ইউপির ৩ সদস্য

 

গীতি গমন চন্দ্র রায়,পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার ১০ নং জাবরহাট ইউনিয়ন পরিষদের দক্ষিণ মালঞ্চা গ্রামের বকুল চন্দ্র রায়ের উপর গতকাল সকালে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে ওই ইউনিয়নের সদস্য নির্মল চন্দ্র রায়(৩৫), পিতা- হরেন্দ্র নাথ রায়, সদস্য মোঃ আব্দুস সালাম ওরফে সারো মেম্বার (৪০), ১,২,৩ নং ওয়ার্ড এর সংরক্ষিত মহিলা সদস্য রাজবালা রানী (৪৫), স্বামী – ফটিকসহ আরো অনেকে।

ঘটনার প্রেক্ষীতে জানা যায়, রাজবালা রাণীর নামে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, ঘর নির্মাণ করে দেয়ার নামে ওই ইউনিয়নের কিছু লোকের কাছে মোটা অংকের ঘুষ নিলে কাজ করে না দিতে পারায় ভুক্তভোগী লোকেরা রাজবালা রাণীর নামে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ৮/০৪/২০১৮ ইং তারিখে নোটিশ মারফত রাজবালা রাণীসহ ভুক্তভোগীদেরকে পীরগঞ্জ উপজেলা হল রুমে শুনানী হয়। শুনানী কালে রাজবালা রাণী রায়ের দুইজন ব্যক্তির কাছে ঘুষের টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করেন।

অপর দিকে নির্মল মেম্বার ও আব্দুস সামাদ ওরফে সারো মেম্বারে বিরুদ্ধে ঘুষ ও দুর্নীতির অভিযোগ হলে অভিযোগের জের ধরে সেচ্ছাসেবক কর্মী বকুলকে সন্দেহ করে তিন সদস্য এক জোট দলবদ্ধ হয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে ওই ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী অষ্টপ্রহর হাট মাটিয়ানী গ্রামের আশ্রম এলাকায় বকুলকে তুলে নিয়ে বাঁশ ঝাড়ের মধ্যে লাঠিসোটা নিয়ে মারপিট ও জখম করে।

সেসময় বকুলের কাছ থেকে মানিব্যাগসহ ৩৫৫০০/= (পয়ত্রিশ হাজার পাচঁশত) টাকা, একটি স্বর্ণের আংটি যার মূল্য ১২৫০০/= (বার হাজার পাচঁশত) টাকা, একটি বাইসাইকেল, একটি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা।ঘটনার সময় পথচারি ব্যক্তি তাকে উদ্ধার করে পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।

সেচ্ছাসেবক কর্মী বকুল কুমার রায় বর্তমানে ব্যাথা যন্ত্রনায় ছটফট করছেন হাসপাতালের ৯ নম্বর ব্যাডে। ১৭/০৪/২০১৮ ইং তারিখে এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর বকুল কুমার অভিযোগ দায়ের করেন। গত ১৬/০৪/২০১৮ ইং তারিখে সন্ধ্যায় পীরগঞ্জ থানায় এজাহার পত্র দাখিল করেন। দাখিলকৃত এজাহার এস আই মকবুল তদারকি দায়িত্বে ১৭/০৪/২০১৮ ইং তারিখে সকালে ঘটনাস্থলে তদন্ত করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে ১০ নং জাবরহাট এলাকা বাসী তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলে জানা যায়।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু /১৭ই এপ্রিল, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৭:৪৯