২১শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৩:৪৪

ফরিদপুরে কাজী জাফরউল্লাহ ও নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের সংঘর্ষ

 

ডেস্কনিউজঃ ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় আজ শনিবার সন্ধ্যায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ ও সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের সামনে এ সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২০ জন আহত হয়। এ ছাড়া পুলিশের ছোড়া গুলিতে কমপক্ষে দুজন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে সংঘর্ষকারীদের দেওয়া আগুনে ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য (এমপি) মুজিবুর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন চৌধুরীর অফিসের আসবাবপত্রসহ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর করা হয় বলে জানিয়েছেন এমপির সমর্থকরা।

সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়েছেন সাদ্দাম হোসেন, আরিফ হোসেন, শানু সর্দার, ইব্রাহীম কাজী, ইমরান মাতুব্বর, কাবুল মাতুব্বর, শাহাদাৎ খয়রাতী, তুহিন মিয়া ও রীমাদ, নয়ন।

ভাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিরাজ হোসেন বলেন, ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের সামনে একটি প্রাইভেটকার পার্কিং করাকে কেন্দ্র করে কাজী জাফরউল্লাহ সমর্থক উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সেখ শাহীনের ছোট ভাই আওয়ামী লীগ নেতা জুয়েলের সঙ্গে এমপি নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক লিটন মিয়ার বাকবিতণ্ডা হয়। একইস্থানে কাজী জাফরউল্লাহ ও এমপি নিক্সন চৌধুরীর আলাদা আলাদা দুইটি অফিস থাকায় উভয়পক্ষের সমর্থকেরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। খবর পেয়ে আমরা  প্রয়োজনীয় ফোর্স নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল গিয়ে টিয়ার শেল নিক্ষেপসহ লাঠিচার্জ করি। এতে উভয়পক্ষের লোকজনই ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। সংঘর্ষ চলাকালে এমপির অফিসের সামনে কেউ আগুন ধরিয়ে দেয়। পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। উপজেলা পরিষদে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন বলেন, সন্ধ্যার দিকে এমপি মহোদয়ের একটি মিটিং নিয়ে আমরা অফিসে বসে সভা করছিলাম। অতর্কিত কিছু লোকজন আমাদের অফিসে হামলা করে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে বঙ্গবন্ধুর ছবিসহ বেশকিছু আসবাবপত্র পুড়ে যায়। পুলিশের ছোড়া গুলিতে আমাদের কয়েকজন কর্মী আহত হয়।

উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সেখ শাহীন বলেন, আমরা শিমুল বাজারে একটি জনসভায় সকলে উপস্থিত ছিলাম। আমার এক নিকট আত্মীয়র একটি গাড়ি পার্কিকে কেন্দ্র করে এমপির লোকজনই আমাদের ওপর হামলা করে আমাদের কর্মীদের মারপিট করে বলে তিনি জানান।

 

কিউএনবি/ বিপুল/০৮.০৪.১৮ রাত ১২:৫৪