২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৬:২৩

শরীয়তপুরের জাজিরায় ভুট্টার আবাদ বেড়েছে

জেলার জাজিরা উপজেলায় বেড়ছে ভুট্টার আবাদ। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি (এনএটিপি) প্রকল্পের আওতায় কৃষকদের আয় বাড়াতে উচ্চমূল্যের ফসল ভুট্টা আবাদ বাড়াতে নিবিড়ভাবে কাজ করছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ। রোগবালাই কম হওয়া ছাড়াও তুলনামূলক আবাদ খরচ কম হওয়ায় ভুট্টা আবাদে তাই আগ্রহী হচ্ছেন কৃষকরাও।
কৃষি অধিদপ্তর ও কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, জাজিরা উপজেলায় গত তিন মৌসুম থেকে ভুট্টার আবাদ বাড়তে থাকলেও এ বছরই সবচেয়ে বেশী আবাদ হয়েছে। তিন বছর আগে মাত্র ৫ হেক্টর জমিতে ভুট্টা আবাদ হলেও এ বছর ২৩ দশমিক ৫ হেক্টর জমিতে ভুট্টার আবাদ হয়েছে। ভুট্টা আবাদে কৃষক বিঘা প্রতি ৫ হাজার টাকা খরচ করে বিক্রি করছেন ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা। ফলে অন্যান্য ফসলের চেয়ে ভুট্টা আবাদে তুলনামুলক বেশী লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা।

জাজিরা উপজেলার জয়নগর ইউনিয়নের খানকান্দি গ্রামের কৃষক মো. ইসমাইল খাঁ বলেন, কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও এনএটিপি প্রকল্পের আওতায় এ বছরই আমি প্রথম ভুট্টা আবাদ করেছি। এক বিঘা জমিতে আবাদ খরচ হয়েছে ৫ হাজার টাকা। ভুট্টায় তেমন কোন রোগ-বালাই আক্রমণ করতে পারেনি। ফলে আমার কোন কীটনাশক ব্যয় হয়নি। ফলন যেমন হয়েছে তাতে ৩২ থেকে ৩৫ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারব। আগামীতে আমি আবাদের পরিমাণ আরও বৃদ্ধি করব।
একই গ্রামের কৃষক সালাম মোড়ল বলেন, ভুট্টা আবাদ আমাদের জন্য এখন খুবই যুগপোযোগী। অন্যান্য ফসলে যেমন ঝুঁকি, ভুট্টায় তারচেয়ে অনেক কম। গত বছর মাত্র ১০ শতক জমিতে ভুট্টা আবাদ করে ভাল ফলন পেয়ে এবার ১ দশমিক ৫ বিঘায় ভুট্টার আবাদ করেছি। আশা করছি যদি বাজার দর কমে না যায় তাহলে ৫০ থেকে ৫৫ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারব। আবাদ খরচ হয়েছে আমার মাত্র ৭ হাজার টাকা। তাছাড়া ভুট্টায় রোগ-বালাই কম, আবাদ খরচ কম, গরুর খাদ্য হিসেবে ব্যবহার ও জ¦ালানি হিসেবেও ব্যবহার করতে পারছি। আমার দেখাদেখি আশপাশের অনেক কৃষকই এখন ভুট্টা আবাদে আগ্রহী হয়েছে।

জাজিরা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ প্রশান্ত বৈদ্য বলেন, কৃষি বাণিজ্যিকীকরণের মাধ্যমে কৃষকদের অর্থনৈতিকভাবে বেশী লাভবান করতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি (এনএটিপি) প্রকল্প কাজ করছে। তাই উচ্চ মূল্যের ফসল ভুট্টা আবাদে কৃষকদের আগ্রহী করতে আমরা মাঠপর্যায়ে কারিগরি সহায়তা ও সার্বক্ষণিক পরামর্শ প্রদান করে যাচ্ছি। ভুট্টা আবাদে অর্থনৈতিক লাভ ছাড়াও বহুমুখী ব্যবহারের সুযোগের ফলে দিন দিন বাড়ছে ভুট্টার আবাদ। আশা করছি ভুট্টার আবাদ করে কৃষকরা অর্থনৈতিকভাবে আরও বেশী লাভবান হবেন।