২০শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:৩৯

পীরগঞ্জে ১০নং জাবরহাট ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে দফায় দফায় ঘুষ ও দূর্নীর্তির অভিযোগ

 

গীতিগমন চন্দ্র রায়,পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ে পীরগঞ্জ উপজেলার ১০নং জাবরহাট ইউনিয়নের ১,২,৩ নং ওয়ার্ডের মহীলা সদস্য রাজবালা রাণী রায় এর বিরুদ্ধে ঘুষ ও দূনীর্তির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা মাটিয়ানি গ্রামের মালতি রানী রায় এর মাতার নিকট পাকা গৃহ নির্মাণ করিয়া দিবে মর্মে রাজবালা ইউপি সদস্য তার কাছে ১৫,০০০/- টাকা নেন। দেড় বছর অতিবাহিত হলে মালতি রানী ঘর ও টাকা ফেরত না পেয়ে গত ২০/০৩/২০১৮ ইং তারিখে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর ঘর নির্মান করে দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ করার নামে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, মালতি রাণী রায় একজন অসহায় গরীব শ্রেণীর এক গৃহ কর্মী। দেড় বছর পূর্বে তার মাতাকে রাজবালা পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার নাম করে, পিআইও কে ঘুষ দেয়ার নাম করে ১৫,০০০/- নিয়ে টালবাহানা করেন। এদিকে গৃহনির্মাণ করে দেয়ার কথা থাকলেও তার নামে তালিকা প্রদান করেন নাই।

মালতি রাণী বলেন আমি রাজবালা ইউপি সদস্যকে বলেছি অনেকবার টাকা ফেরত চেয়েছি কিন্তু সে টাকা দিতে পারবেনা বলে মালতিকে বিভিন্ন ভাষায় গালিগালাজ করেন। অসহায় গরীব মহিলা মালতি রানী ওই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে টাকা ফেরত সহ সুষ্ঠু ও ন্যায় বিচার সহ দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি জন্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে অভিযোগ করেন।

এদিকে ইউপি সদস্য রাজবালার কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি সাংবাদিককে বলেন, দেড় বছর পুর্বে আমি তার কাছে ধার সরুপ টাকা নিয়েছি । কয়েকদিন পরেই দিয়ে দিব, কিন্তু আমার নামে ইউএনও সাহেবের নিকট অভিযোগ করা তার মোটেই উচিত হয়নি।

এ বিষয়ে এলাকারবাসীকে জিজ্ঞাসাবাদ করিলে সাংবাদিককে জানান আমরাও শুনেছি টাকা নিয়েছে ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার জন্য। অপর দিকে সুশীল সমাজ জানায়, এ বিষয়ে কর্র্তৃপক্ষের নিকট ইউপি সদস্যের পথ বহিস্কার পূর্বক ও আইনগত ব্যবস্থার কৃপাকৃষ্টি কামনা করেন।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৩রা এপ্রিল, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:৫৩