১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৭:৩৯

ট্রেনের ছাদ থেকে চুইয়ে চুইয়ে পড়ছিল রক্ত…

 

নিউজ ডেস্কঃ ট্রেনের ছাদ থেকে চুইয়ে চুইয়ে রক্ত পড়তে দেখে যাত্রীরা হৈচৈ শুরু করলে ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলায় একটি ট্রেনের ছাদ থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবককে (১৬) রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি)। এ সময় সন্দেহভাজন হিসেবে চারজনকে আটক করা হয়।গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথের ঢাকাগামী আন্তনগর তিস্তা এক্সপ্রেস ট্রেনে এ ঘটনা ঘটে।

আটক চারজন হলেন ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার গোদারিয়া গ্রামের বাবুল (১৮), গৌরীপুর উপজেলার নয়াপাড়া গ্রামের ফরিদুল ইসলাম (২৫), শেরপুর জেলার সদর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর এলাকার ফারুক মিয়া (২৫) ও নেত্রকোনা জেলার বাহাম গ্রামের কাইজুল মিয়া (২০)।

গফরগাঁও রেলওয়ে পুলিশ ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ট্রেনটি ময়মনসিংহ জংশন স্টেশন অতিক্রম করার পর ট্রেনের ছাদ থেকে চুইয়ে চুইয়ে রক্ত পড়তে দেখে যাত্রীরা হৈচৈ শুরু করেন। পরে কর্তব্যরত পুলিশ আউলিয়ানগর স্টেশনে ট্রেনটি থামিয়ে ছাদে যুবককে রক্তাক্ত ও অচেতন অবস্থায় দেখে গফরগাঁও জিআরপি ফাঁড়িতে খবর দেয়। এ সময় ছাদে ভ্রমণরত চারজনকে আটক করে পুলিশ।

এরপর সন্ধ্যা ৬টার দিকে ট্রেন গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায়। সঙ্গে সঙ্গে ওই যুবককে গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।জিআরপি গফরগাঁও ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই)  শফিকুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, অজ্ঞাত ব্যক্তির মুখমণ্ডল ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর জানা যাবে এটি হত্যাকাণ্ড কি না।বিষয়টি নিশ্চিত করে ময়মনসিংহ জংশন জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মান্নান ফরাজী বলেন, ‘গফরগাঁও রেলওয়ে ফাঁড়িতে একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা নিতে বলেছি।’

 

 

কিউএনবি/অদ্রি আহমেদ/০১.৪.১৮ রাত ১০.৪০