১৬ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১:৪৭

দুর্গাপুর সরকারি হাসপাতাল ৯ বছর ধরে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস বন্ধ

 

তোবারক হোসেন খোকন,(দুর্গাপুর) নেত্রকোনা : জেলার দুর্গাপুরে সরকারী হাসপাতালে প্রায় ৯বছর ধরে কোন এম্বুলেন্স না থাকায় সাধারণ রোগিদের ভোগান্তি চরম আকারে পৌচেছে।

এ নিয়ে বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, উপজেলার সাতাশি গ্রামের জয়নাল মিয়া দুর্গাপুর সরকারী হাসপাতাল থেকে গুরুতর অসুস্থ্য তাঁর বাবাকে নিয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যেতে সরকারী এম্বুলেন্স না থাকায় বিপাকে পড়তে হয়।

দুর্গাপুর থেকে ৬২ কি.মি. দুরত্ব ময়মনসিংহে যেতে সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া ১ হাজার ২৩০ টাকা হওয়ার কথা থাকলেও ভাড়ায়চালিত মাইক্রো সার্ভিস দিয়ে ২ থেকে ৩ গুন ভাড়ায় রোগিদের স্থানান্তর করতে হয়। জয়নাল মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে যুগান্তর কে বলেন, তাঁর বাবাকে হাসপাতাল ছাড়পত্র দিয়েছে।

কিন্তু গুরুতর অসুস্থ থাকায় অন্য কোনো গাড়িতে নেওয়ার ঝুঁকি নেননি। তাই ভাড়া বেশি হলেও নামে মাত্র মাইক্রো সার্ভিসে নেয়া ছাড়া কোন উপায় নাই। হাসপাতালে এম্বলেন্স না থাকায় খোদ হাসপাতালের ভিতরেই খোলা জায়গায় মাইক্রো ষ্ট্যান্ড বানিয়ে সিন্ডিকেট ব্যবসার মাধ্যমে সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে এভাবেই চলছে এম্বুলেন্স ব্যবসা।

হাসপাতালের ২টি এম্বুলেন্স সড়ক দুর্ঘটনা ও আগুনে পুড়ে নষ্ট হওয়ার ফলে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় পুনরায় ২০১১সনে ১টি এম্বলেন্স বরাদ্দ দিলেও নানা জটিলতার কারনে সেটিও বর্তমানে নষ্ট হয়ে গ্যারেজ বন্দি থাকায় প্রায় ৯বছর যাবৎ সাধারণ মানুষ এ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, জ্বালানি তেল ও মেরামতের কোন বড়ধরনের বরাদ্দ না থাকায় এম্বলেন্স গ্যারেজেই পড়ে আছে।এ নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা মোঃ মাইন উদ্দিন খান বলেন, আমি এ হাসপাতালে প্রায় ১মাস হয়েছে যোগদান করেছি।এম্বুলেন্স সমস্যাটি আমি দেখেছি, অচিরেই উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের সাথে এ বিষয় নিয়ে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

 

 

কিউএনবি/সাজু/২৯শে মার্চ, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:৫৯