১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:১৮

নারায়ণগঞ্জে আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে যুবলীগকর্মী নিহত, আহত ২০: আটক ২০

 

হাসান মজুমদার বাবলু,নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ১জন নিহত ও ১৭জন গুলিবিদ্ধসহ ২০জন আহত হয়েছে। পুলিশ এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ২০জনকে আটক করেছে।

সংঘর্ষের সময় সুমন মিয়া নামের এক যুবলীগ কর্মী গুলিবিদ্ধ হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন। বৃহস্পতিবার উপজেলার কাঞ্চন ব্রীজের পশ্চিমপাড় এলাকায় দুপুরে ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষ চলে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল ছুঁড়ে দুই পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। নিহত সুমন উপজেলার তারাবো পৌরসভার গন্ধবপুর এলাকার মনু মিয়ার ছেলে। সে যুবলীগের কর্মী ছিল।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে রূপগঞ্জ আওয়ামীলীগের কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রফিক গ্রুপের নেতাকর্মীরা এশিয়ান হাইওয়ের কাঞ্চন সেতরু পশ্চিম পাড়ে অবস্থান নেয়। এসময় আওয়ামীলীগের স্থানীয় সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজী গ্রুপের নেতাকর্মীরা একই স্থানে অবস্থান নিলে দু’পক্ষের মধ্যে প্রথমে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া শুরু হয়।

পরে আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দেড় ঘন্টা সংঘর্ষের পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে এক পক্ষ পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে ত্রিমূখী সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে দু’পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ২০ জনকে আটক করে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার মঈনুল হক জানান, পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রনে আছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন কার হয়েছে।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং/রাত ৯:২৬