২৬শে মে, ২০১৯ ইং | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:০২

ভান্ডারিয়ায় প্রধান শিক্ষকের খামখেয়ালির কারনে প্রবেশপত্র বোর্ডে ফেরৎ পাঁচ শিক্ষার্থী পরীক্ষা থেকে বঞ্চিত

 

মামুন হোসেন,পিরোজপুর প্রতিনিধি : ভান্ডারিয়া উপজেলার ইকড়ি ইউনিয়ান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫ শিক্ষার্থী এসএসসির বোর্ড পরীক্ষায় প্রধান শিক্ষকের খামখেয়ালীর কারনে পাঁচ শিক্ষার্থী পরীক্ষা থেকে বঞ্চিত।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগে জানা গেছে তারা যথা নিয়মে পরীক্ষা ফরম পূরন করেন কিন্তু প্রধান শিক্ষকের কাছে বোর্ড থেকে তাদের প্রবেশ পত্র বিদ্যালয় পাওয়া গেলেও প্রধান শিক্ষক কাউকে কিছু না বলে তড়িগড়ি করে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে জমা দেন। কিন্তু বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর আনারুল আজিম তাদের জানায় প্রধান শিক্ষক বোর্ডে কোন প্রবেশ পত্র জমা দেয়নি।

বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানালে তিনি প্রধান শিক্ষকে তার ডকুমেন্ট সহ তার অফিসে আসার জন্য বলা হলেও তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে না যোগাযোগ করে ওই পাঁচ শিক্ষার্থীর প্রবেশ পত্র বোর্ডে জমা দিয়েছে বলে মোবাইলে অবহিত করেন। ক্ষতিগ্রস্থ পাঁচ শিক্ষার্থী হচ্ছে শাহজালাল (রোল ২৪১২৩৫), মো. হেলাল (রোল ২৪১২৪২), আব্দুল্লাহ সবুজ (রোল ২৪১২৪৫), মো. সাগর (রোল ২৪১২৪৭), মো. হাফিজুল (রোল ২৪১২৪৮)। শিক্ষার্থী শাহজালাল জানায় প্রধান শিক্ষক প্রথমে তাদের বিদ্যালয় থেকে সকলের উপস্থিতিতে পাঁচ শিক্ষার্থী সকল বিষয় নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তর্ণী না হওয়ায় তাদের বিদ্যালয় থেকে ছাড়পত্র দেন।

পরবর্তীতে প্রধান শিক্ষক গোপনে তাদের কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে ফরম পূরণ করে। কিন্তু বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষকদের জানাতে নিষেধ করে এ কারনে আমরা কাউকে বলা হয়নি। বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীর সাথে আমাদের প্রবেশ পত্র আসলে বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষকরা প্রধান শিক্ষকের কাছে ওই পাঁচ শিক্ষার্থী কি ভাবে ফরম পূরণ হলো বিষয়টি প্রধান শিক্ষক সকল শিক্ষকের তোপের মুখে পরে কাউকে কিছু না বলে তরিগড়ি করে বরিশাল শিক্ষা বোর্র্ডে জমা দিয়েছে।

কিন্তু প্রধান শিক্ষকের খামখেয়ালীর কারণে পাঁচ শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন অকালে জড়ে পরবে এবং পাশাপাশি এসকল শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের ছেলে মেয়ে লেখা পড়া ছেড়ে খারাপথ বেচে নিবে বলে অভিভাবকদের ধারণা।

ভান্ডারিয়া উপজেলার ইকড়ি ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গনেশ চন্দ্র জানায় পাঁচ শিক্ষার্থী নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার তাদের বিদ্যালয় থেকে ছাড় পত্র দিয়েছি। আমি তাদের ফরম ফিলাপ করি নাই। কি ভাবে তাদের প্রবেশ পত্র এসেছে আমার জানা নেই।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং/রাত ৮:১২

Please follow and like us:
0
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial