২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সকাল ৯:২৩

চন্দ্রপুরে বিরোধপূর্ণ জমি কিনে জবর দখল প্রতিবাদ করায় চাঁদাবাজী মামলা

 

খোরশেদ আলম বাবুল,শরীয়তপুর : শরীয়তপুর সদর উপজেলার চন্দ্রপুরে বিরোধপূর্ণ জমি কিনে আদালতের স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জবর দখল করার অভিযোগ এক আমেরিকা প্রবাসীর বিরুদ্ধে। জবর দখলে প্রতিবাদ করায় শ্রমিক দিয়ে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী মামলাও করিছেন বলে জানা গেছে। এ বিষয়কে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে পালং মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

স্থানীয় ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার সূত্র জানায়, ৬ নং চন্দ্রপুর মৌজায় এস এ ২৩০ খতিয়ানের ১৭২১ নম্বর দাগের ২ একর ৭৩ শতাংশ জমির মালিক মরহুম রহিম হাওলাদার। বর্তমান বিআরএস রেকর্ডে ভুলবসত উক্ত জমি জনৈক জহুরা বিবির নামে ৩৪ শতাংশ জমি রেকর্ড হয়। বি আর এস রেকর্ড সংশোধনের জন্য আদালতে মামলা চলছে। আদালত নালিশী জমিতে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করে।

আদালতে মামলা চলাকালে বি আর এস রেকর্ডীয় মালিক জহুরা বিবি মারা যায়। জহুরার মৃত্যু পরবর্তী মঞ্জুর আলম খান নামে এক আমেরিকা প্রবাসী জহুরার ওয়াশিদের ফুসলিয়ে নালিশী জমি কিনে নিয়ে জবর দখল করছে। দখলে বাঁধা দেয়ায় দখল শ্রমিক সুলতান মাহমুদ টিপুকে দিয়ে জমির প্রকৃত মালিক রহিম হাওলাদারের ওয়ারিশদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী মামলা করায় আমেরিকা প্রবাসী মঞ্জুর আলম খান।

মামলা পরবর্তী সোমবার সকালে মঞ্জুর আলম খান তার শ্রমিক নিয়ে নালিশী জমিতে নির্মাণ কাজ করতে আসে। সংবাদ পেয়ে জমি মালিকগণ নির্মাণকাজে বাঁধা দেয়। এ বিষয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে সংবাদে পালং থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বর্তমানে নালিশী জমি জবর দখল চলমান রয়েছে বলেও জানায় তারা।

সোমবার দুপুরে পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামানের উপস্থিতিতে স্থানীয় মুরব্বী রশিদ খান, মাদারীপুর জেলার ছিলারচর ইউপি চেয়ালম্যান বাবুল সরদার, তহশিলদার আক্তার হোসাইন সমন্বয়ে এক দরবার হয়।

জমির মালিক লালচান হাওলাদার ও সেকান হাওলাদার বলেন, বি আর এস রেকর্ড সংশোধনের জন্য আদালতে মামলা করেছি। আদালত নালিশী জমির উপর স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারী করেছে। মামলা চলাকালিন জহুরার ওয়ারিশদের কাছথেকে জমি কিনে জবর দলখ করে মঞ্জুর খান। বাধা দেয়ায় আমাদের নামে চাঁদাবাজী মামলা করেছে। এখনও জমিতে নির্মাণ কাজ করছে। আমরা প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার দাবী করছি।

পালং মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, চন্দ্রপুর বাজার সংলগ্ন জমিতে জনৈক মঞ্জুর আলম নামে এক ব্যাক্তির নির্মাণ কাজে দুস্কৃতকারীরা বাঁধা দেয়। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। আজকের ঘটনায় কোন মামলা হয়নি। পূর্বের ঘটনায় একটা চাঁদাবাজী মামলা হয়েছে।

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২৯শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৭:০২