১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১০:০৩

লাশ মাটিতে পুঁতে বোরো আবাদ!

 

ডেস্ক নিউজ : শেরপুরের নালিতাবাড়িতে এক তরুণীকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর দেহ থেকে মাথা ও চার হাত-পা বিচ্ছিন্ন করে মাটির নীচে পুঁতে জমিতে বোরো আবাদ করা হয়েছে। এই চানচল্যকর ঘটনা ঘটেছে উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের চাদগাঁও পালপাড়া উত্তরবন্দ গ্রামে। দুই হাত-দুই পা কাটা তরুণীর টুকরো লাশ উদ্ধার করে গতকাল শুক্রবার বিকালে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। মেয়েটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 
পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিহত তরুণী ঝিনাইগাতী উপজেলার গৌরীপুর ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের মৃত সিরাজ আলীর মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা রোকসানা (২৮)। সে তার ৯ বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান নিয়ে চাতাল শ্রমিকের কাজ করতো। নালিতাবাড়ির রাজনগর ইউনিয়নের চাদগাঁও পালপাড়া গ্রামের মৃত আ. খালেকের পুত্র মো. মাসুদ মিয়া (৩০) পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে গত ১৭ জানুয়ারি বনগাঁওয়ে তাদের বাড়ি যান। স্থানীয় জিয়ারুলের মিলে ধান ভাঙার কাজ দেওয়ার কথা বলে মাসুদ রোকসানাকে নালিতাবাড়ীতে নিয়ে আসেন।
রাতে রোকসানা বাড়ি না ফেরায় তার মা জেলেখা জিয়ারুলের মিলে গিয়ে জানতে পারেন মাসুদ ও রোকসানা সেখানে যায়নি। পরের দিন রোকসানার মা জিয়ারুলকে সাথে নিয়ে চাঁদগাও গ্রামে মাসুদের বাড়ি যান। সেখানেও রোকসানাকে না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন মা।
 
পরে রোকসানার মামা গ্রাম পুলিশ তোফাজ্জল হক ঝিনাইগাতী থানায় মাসুদের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ করেন। এক পর্যায়ে নালিতাবাড়ী থানা পুলিশ গত ২৪ জানুয়ারি থেকে অভিযানে নামে। এক পর্যায়ে শুক্রবার ভোরে একটি খেতে বোরো ধান রোপণ করতে দেখলে সন্দেহ হয় স্থানীয়দের। পরে খেতে সন্ধান করে মাটির নিচে পুতেঁ রাখা লাশের সন্ধান পাওয়া যায়। পরিবারের সদস্যরা লাশটি শনাক্ত করেছেন।
 
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নালিতাবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সরোয়ার হোসেন জানান, এ ব্যাপারে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করার খবর পাওয়া যায়নি।
কিউএনবি/রেশমা/২৭শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং/ সকাল ১১:১০