১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১:২৭

নারায়ণগঞ্জে হকার ইস্যুতে এমপি ও মেয়র সমর্থকদের সংঘর্ষের ৭দিন পর মামলা

 

নারায়ণগঞ্জ থেকে হাসান মজুমদার বাবলু : নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার ইস্যু নিয়ে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি এবং নাসিক মেয় সেলিনা হায়াৎ এর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় ৭ দিন পর পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছে। একই সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটিকে আরো ভালোভাবে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার জন্য আরো ৭ কার্যদিবস বৃদ্ধি করে দিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

হকার ইস্যুতে বুধবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় আসামী করা হয়েছে অজ্ঞাত ৫০০ থেকে ৬০০ জনকে। বৃৃহস্পতিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার দায়িত্বরত ওসি (পরিদর্শক) আবদুর রাজ্জাক জানান, সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে মামলাটি দায়ের করেছেন। এতে ১৬ জানুয়ারী বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় সরকারী কাজে বাধা, জনস্বার্থ বিঘিœত, পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ তোলা হয়েছে।

অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার ইস্যুতে সৃষ্ট সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে আরো ৭ কার্যদিবস সময় পেয়েছে তদন্ত কমিটি। ২৪ জানুয়ারি বুধবার ৭দিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আরো ৭দিনের সময় বাড়িয়ে দেয়া হয়। কমিটিকে আগামী ২ ফেব্রুয়ারি তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

গত ১৬ জানুয়ারী সংঘর্ষের পরদিন ১৭ জানুয়ারী জেলা প্রশাসকের নির্দেশে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির প্রধান করা হয় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জসিমউদ্দিন হায়দারকে। কমিটির অন্য দুজন হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, র‌্যাবের সহকারি পরিচালক বাবুল আক্তার।

তদন্ত কমিটির প্রধান নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জসীম উদ্দীন হায়দার গণমাধ্যমকে বলেন, কিভাবে ঘটনার সূত্রপাত, কারা কারা ছিল, কারা কারা অস্ত্র প্রদর্শন করেছে সহ সার্বিক বিষয়ে খতিয়ে দেখতে হবে। এসব নিয়ে ইতোমধ্যে তদন্ত চলছে। তাছাড়া ঘটনা কি কারণে ঘটলো সেটাও বের করতে হবে যদিও এটা বেশ কষ্টসাধ্য। অনেকের বক্তব্য নেয়া প্রয়োজন। সেই সব কারণে আমাদের সময় দরকার ছিল েেস আলোকে সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করতে আরও সাত দিনের সময় চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক আরও সাত দিনের সময় বাড়িয়ে দিয়েছেন।

এরআগে নাসিক মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে সোমবার রাতে সিটি করপোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে সন্ত্রাসী নিয়াজুলসহ ৯জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরো ১০০০ জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দেয় সদর মডেল থানায়। কিন্তু ২দিন পর বুধবার অভিযোগটি জিডি হিসেবে গ্রহণ করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার ইস্যু নিয়ে গত ১৬ জানুয়ারি চাষাঢ়ায় হকার ও এমপি শামীম ওসমানের অনুসারীদের সঙ্গে মেয়রের লোকজনের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সময় উভয় গ্রুপের লোকজনের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। সংঘর্ষে নিয়াজুলসহ অস্ত্রধারীরা আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। সংঘর্ষের সময় মেয়র আইভীসহ অন্তত অর্ধশতাধিক আহত হয়। সেই সঙ্গে আহত হয় সাংবাদিক ও আওয়ামী লীগ নেতাসহ আরও অনেকে।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২৫শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:৩১