১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:৩৬

শরীয়তপুরে বাল্যবিবাহ রোধে নোটারী পাবলিকদের প্রতিশ্রুতি

 

খোরশেদ আলম বাবুল,শরীয়তপুর : বাল্যবিবাহ রোধে শরীয়তপুর জেলার নোটারী পাবলিকদের সাথে জেলা প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার জেলা প্রশাসকের কক্ষে মতবিনিময় সভায় জেলার নোটারী পাবলিক আইনজীবী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ উপস্থিত ছিলেন। জেলার নোটারী পাবলিক ও আইনজীবীগণ প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে প্রশাসনকে সহায়তা করবেন।

জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল হোসাইন খান বলেন, শরীয়তপুর জেলার নোটারী পাবলিকদের নিয়ে সভা করেছি। জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতিসহ নোটারী বাপলিকগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন। আইন বিষয়ক মন্ত্রনালয় থেকে একটা পরিপত্রে আছে নোটারী পাবলিক কর্তৃক বিবাহ পড়ানো বে-আইনী।

এ বিষয়ে নোটারী পাবলিকদের স্মরণ করিয়ে দেই। দেখাগেছে নোটারী পাবলিকগণ বাল্যবিবাহের সাথে জড়িত। কিছু কিছু জায়গায় নোটারী পাবলিক কর্তৃক বাল্যবিবাহ সম্পন্ন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এবং এর প্রমাণও তাদের দেখিয়েছি। এ বিষয়ে নোটারী পাবলিকগণ সতর্কতা অবলম্বন করবেন এবং ভবিষ্যতে এ কাজ করবে না মর্মে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, সোমবার সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিয়াউর রহমান শরীয়তপুর পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড বিবাহ রেজিষ্ট্রার কাজী রেজাউল করিমের একটা রেজিষ্ঠ্রার বই উদ্ধার করে। সেখানে দেখা গেছে বর-কণে ও সাক্ষিদের স্বাক্ষর রয়েছে কিন্তু কোন তথ্য লেখা নাই। তাছাড়া তার নির্ধারিত এলাকার বাহিরে এমনকি ভিন্ন থানার ও জেলার বর-কণের বিবাহ রেজিষ্ট্রি করেছেন। এটা সম্পূর্ণ বেআইনী।

এ সকল কাজীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।নোটারী পাবলিক এডভোকেট মুরাদ হোসেন মুন্সী বলেন, জেলা প্রশাসকের সাথে জেলার নোটারী পাবলিকদের মতবিনিময় হয়। সেখানে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধের বিষয়ে আলোচনা হয়। বিবাহ না করানোর জন্য আমাদের প্রতি জেলা প্রশাসকের আহবান ছিল। আসলে আমরা কোন বিবাহ পড়ানোর ক্ষমতা রাখি না।

আমরা বিবাহ সম্পর্কে বর-কণের মতামত ঘোষনা করি। অনেক সময় বয়স সংশোধণের ঘোষণা দেই। তবে মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসনকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি বিবাহ সংক্রান্ত বিষয়ে কোন ঘোষণা করব না। যদিও জন্ম নিবন্ধন সহ প্রাপ্ত বয়স্ক বর-কণে আমাদের কাছে আসে তাহলে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের মতামত যাচাই করতে বলা হয়েছে।

আমাদের আইনের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নাই। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে আমরা জেলা প্রশাসককের সাথে একমত পোষণ করেছি।সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিয়াউর রহমান বলেন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। আদালত পাড়া ও কাজী অফিসের আশপাশে পাহাড়া বসানো হয়েছে। বাল্যবিবাহের সংবাদ পেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইতোমধ্যে শরীয়তপুর পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড কাজীর বিবাহ রেজিষ্ট্রার জব্দ করা হয়েছে। সেখানে ব্যাপক অনিয়ম পাওয়া গেছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

 

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২৩শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৭:৩৪