১৬ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৩:০১

গাইবান্ধায় কমিউনিটি ক্লিনিকের কর্মীদের অবস্থান কর্মসূচী

 

জাহিদ খন্দকার,গাইবান্ধা : চাকরি জাতীয়করণের দাবীতে গাইবান্ধায় কমিউনিটি ক্লিনিকের কর্মী কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার-সিএইচসিপিরা শনিবার সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে জেলার সকল কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ রেখে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচী পালন করে। জেলা সিএইচসিপি এ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে গাইবান্ধার সাত উপজেলায় এক সাথে এই কর্মসূচী পালিত হয়।

কর্মসূচী চলাকালে বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা জেলা সিএইচসিপি এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আতাউর রহমান আতা, শাম্মী আকতার, আবু শামীম প্রমুখ। বক্তারা বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক কর্মীরা জেলার চরাঞ্চলসহ প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে ২শ’ ৯৪টি ক্লিনিকে স্বল্প বেতনে সাধারণ মানুষের সেবা প্রদান করে আসছে। তদুপরি এসব কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নারী, শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের বিভিন্ন সেবাসহ ৩২ প্রকার ওষুধ প্রদান করা হচ্ছে।

কিন্তু তারা তাদের যে সামান্য বেতন দেয়া হচ্ছে তাতে একটি পরিবারের মৌলিক চাহিদাও পুরণ হচ্ছে না। ফলে তাদেরকে পরিবার পরিজন নিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাই বক্তারা অতিদ্রুত সিএইচসিপিদের চাকরি রাজস্বকরণের আওতায় আনার দাবি জানান। বক্তারা আরও বলেন, ২০১৩ সালে তাদের চাকরি জাতীয়করণের আশ্বাস দিয়ে সিভিল সার্জনদের কাছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ পত্র প্রদান করে।

পরবর্তীতে ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে চাকরি জাতীয়করণসহ বেতন বৃদ্ধিরও আশ্বাস প্রদান করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন আশ্বাস বাস্তবায়িত হয়নি। ফলে কর্মরত কর্মীরা স্বল্প বেতনে দিশেহারা হয়ে পড়েছে এবং পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এছাড়া চাকরি জাতীয়করণের দাবি পূরণ না হলে বক্তারা গাইবান্ধাসহ সারাদেশের সকল কমিউনিটি ক্লিনিকে বৃহত্তর কর্মসূচীর আল্টিমেটাম ঘোষণা করে।

 

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/২০শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং/বিকাল ৫:৪৩