১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ১১:৪২

প্রতিপক্ষের ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে সক্ষম নয় যুক্তরাষ্ট্র!

মার্কিন যুদ্ধবিমান, মিসাইল সিস্টেম একাধিকবার সমালোচনার মুখে পড়েছে। অনেকেই জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়া, চীন, রাশিয়া সামরিক প্রযুক্তিতে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, তাতে ক্রমশ পিছনে পড়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এমনকি, মার্কিন সাবমেরিনগুলো যেকোন মুহূর্তে হামলার স্বীকার হতে পারে বলে গত কয়েকমাস আগে তা মার্কিন প্রশাসনকে জানানো হয়। এজন্যে অতিদ্রুত সামরিক প্রযুক্তি উন্নত করার জন্যে প্রশাসনকে সুপারিশ করা হয়। কিন্তু এরপরেও যে সেই অবস্থার বদল ঘটেনি তা বুঝিয়ে দিল আমেরিকা ইউনিয়ন অফ কনসার্নড সায়েন্টিস্ট বা ইউসিএস।

সম্প্রতি এই সংস্থার পক্ষ থেকে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে, মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা অনির্ভরযোগ্য। যা দিয়ে কখনো মার্কিন জনগণকে হামলা থেকে রক্ষা করা যাবে না। মার্কিন নগর এবং শহরগুলোকে সীমিত পারমাণবিক হামলা থেকে রক্ষার জন্য এই ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়েছে। গ্রাউন্ড-বেজড মিডকোর্স ডিফেন্স সিস্টেম বা জিএমডি নামের এই ব্যবস্থার পেছনে ২০১৭ পর্যন্ত চার হাজার কোটি ডলার ব্যয় হবে। কিন্তু ইউসিজি’র ৬০ পাতার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বহু বছরের অবহেলায় এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মারাত্মক দৈন্য দশায় পড়েছে।

 

এতে আরও বলা হয়েছে, শত্রু বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ঠেকানোর জন্য ক্যালিফোর্নিয়া এবং আলাস্কায় বসানো আছে জিএমডি’এর ইন্টারসেপ্টর রকেট। কিন্তু এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার সক্ষমতা পরীক্ষা করে দেখার জন্য চালানো মহড়ায় কল্পিত শত্রুর হামলাকারী একটি ক্ষেপণাস্ত্রও ওই ইন্টারসেপ্টর রকেট দিয়ে প্রতিহত করা যায়নি। প্রায় ১৫ বছর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের প্রশাসনের আমলে এই ব্যবস্থা মোতায়েন করা হলেও তা কখনোই বাস্তব অবস্থায় তা কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়নি। কলকাতা টুয়েন্টিফোর।