১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৬:৩৯

মুন্সীগঞ্জে আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় নিখোঁজ মানিকের লাশ উদ্ধার

 

শেখ মোহাম্মদ রতন স্টাফ, রিপোর্টার মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জের চলাঞ্চলের মোল্লাকান্দি ইউনিয়নে ৩ জানুয়ারির আ”লীগের দু”গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় নিখোঁজ মানিক (৪৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার সকালে চৈতারচর গ্রামের খালে লাশটি ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, মানিক দীর্ঘদিন ধরে ককটেল এবং বোমা বানিয়ে আসছিল। মানিক ককটেল এবং বোমা বানানোতে বেশ পারদর্শী ছিলেন। টাকার বিনিময়ে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নসহ আশপাশ এলাকায় গিয়ে ককটেল বানিয়ে দিত। প্রায় ১০ বছর পূর্বে চুক্তিতে ককটেল বানাতে গিয়ে তার একটি হাত উঁড়ে যায়। সে থেকে এলাকায় তার নাম হয়ে যায় টুন্ডা মানিক। এক সময় নেশা জগতে পা রাখেন এই মানিক । এতে করে অনেকটা অস্বাভিক আচরন এবং পাগলের মত হয়ে যায়। হারিয়ে ফেলেন উপস্থিত জ্ঞান এতে করে অনেকটা পাগল প্রায় হয়ে যায় মানিক। মানিক চৈতারচর গ্রামের সরল কাজীর ছেলে ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আলমগীর হোসাইন বলেন, আমরা জানতে পেরেছি প্রায় ১০ বছর পূর্বে বোমা বানাতে গিয়ে মানিকের একটি হাতের কবজি উঁড়ে যায়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় গ্রামগুলোতে যেন কোন পক্ষ নতুন করে সংঘর্ষ, লুপপাট এবং অরাজগতা সৃস্টি না করতে পারে সে ব্যাপারে পুলিশ তৎপর রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য- গত ৩ জানুয়ারি চৈতারচর গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটলে প্রতিপক্ষের ধাওয়া খেয়ে মানিক চৈতারচর খালে ঝাঁপ দেয়। অনেক খুঁজে তার কোন হদিস মেলেনি। বিভিন্ন মাধ্যমে শোনা গিয়েছিল মানিক ফিরে এসেছে ।মানিক নিখোঁজ ছিল নাকি উদ্ধার হয়ে নিজে পালিয়ে ছিল এ ব্যাপারে পুলিশ নিশ্চিত হতে পারেনি।

মানিকের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে । স্থানীয় নিরীহ গ্রামবাসীদের আশংকা এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুবিধাবাদী সন্ত্রাসীরা গ্রামগুলোতে লুটপাট করার পায়তারা খুঁজছেন বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্ধারা।

 

 

 

কিউএনবি/সাজু/৬ই জানুয়ারি, ২০১৮ ইং/সন্ধ্যা ৬:০৫