১৮ই জুন, ২০১৯ ইং | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | সকাল ১০:৫৬

নীলফামারীর সৈয়দপুরে দিনে দুপুরে দুজনকে গলা কেটে হত্যা

 

মোঃ আইয়ুব আলী, নীলফামারী প্রতিনিধি :নীলফামারীর সৈয়দপুরে কয়ানিজপাড়া (দোলাপাড়া) এলাকায় এক নারীসহ দুজনকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।


স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই এলাকায় ডা. হোসেন তাওফিক ইমাম তার বাসা বাড়ায় দেয় এক অটোচালককে। চালকের স্ত্রী এক সন্তানের জননী সেখানে বসবাস করতো। হঠাৎ বুধবার (২৯ নভেম্বর) সকাল ১১টায় ৩জন যুবক এক মোটরসাইকেলে ওই বাসার সামনে এসে দাঁড়ায়।

কিছু সময় পর বাসার ভেতর থেকে ২২ বছর বয়সী এক মেয়ে ও ৩০ বছরের এক যুবক বের হয়। এ সময় তিন জন মোটর সাইকেল আরোহী ২ জনের হাতে দুটি ছোরা দিয়ে এলোপাতারি উভয়কে ছুরিকাঘাত করে। রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ির বাহির থেকে টেনে হেচড়ে তাদেরকে ভেতরে নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে বাড়ির একটি কক্ষে মেয়েটিকে বালিশ চাপা দিয়ে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়। আর ছেলেটিকে গলা এবং কোমর পিঠে আঘাত করে হত্যা করে। এ খবর পেয়ে পুলিশের ক্রাইম জোনের একটি টিম ঘটনাস্থলে যায়।

এরপর নীলফামারী জেলা পুলিশ সুপার জাকীর হোসেন খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সৈয়দপুর থানার বিপুল সংখ্যক পুলিশ সেখানে অবস্থান নেন। এ পর্যন্ত হত্যাকারী এবং হত্যাকৃত নারী-পুরুষের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তারা কোথাকার লোক এবং কারাই তাদের হত্যা করলো এটা সবার কাছে রহস্যজনক বলে মনে হয়। তবে এলাকাবাসীর ধারণা ওই বাসায় যে অটোচালক ছিলো সেও ঘটনার পর থেকে উধাও।

বাড়ির ভিতরে দেখা যায় চুলোয় রান্নার জন্য পাতিল উঠা ছিল। বাড়ির বিভিন্ন স্থানে রক্ত, তোয়ালে, পড়নের জিন্স প্যান্ট ছিন্নভিন্ন অবস্থায় পড়ে ছিলো। দিনের বেলায় ২জনকে হত্যা করে বাসার ভেতরে রেখে যাওয়া বিষয়টি এলাকার মানুষের কাছে আতংকের সৃষ্টি করেছে।


এ বিষয়ে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহজাহান পাশা জানান, বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। তবে হত্যাকারী যেই হোক না কেন তাকে আইনের হাতে ধরা পড়তেই হবে। তবে স্থানীয়রা ধারনা করছেন এ হত্যাকান্ডটি প্রেম ঘটিত হতে পারে।

 

কিউএনবি /রিয়াদ/২৯শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং/বিকাল ৪:১৮

Please follow and like us:
0
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial