১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:৫১

“রংপুরে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সুষ্ঠুভাবে আনসার প্রশিক্ষণার্থী বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত”

 

গোলাম মোস্তফা রাঙ্গা : রংপুরে ডিজিটাল পদ্ধতিতে দু’দিন ধরে সুষ্ঠুভাবে রংপুর বিভাগের ৮জেলার ৩৬৫ জন আনসার প্রশিক্ষণার্থী বাছাই কার্যক্রম সুষ্ঠু সম্পূন্ন হয়েছে।

এই প্রথম অন লাইনে রেজিস্ট্রেশনকৃত ৭১৪৪ জন আনসার প্রশিক্ষণ গ্রহণে ইচ্ছুক সদস্যদের কাগজপত্রাদি, উচ্চতা, বুকে মাপ এবং স্বাস্থ্য পরীক্ষা ১৫ নভেম্বর দিনব্যাপি রংপুর স্টেডিয়ামে প্রাথমিকভাবে অনুষ্ঠিত হয়। বাছাই কার্যক্রমটি চার স্তরে অনুষ্ঠিত হয়।প্রথম স্তরে একদল বাছাইকারী অনলাইন রেজিস্ট্রেশন ফরম ও কাগজ পত্রাদি পরীক্ষার করেন।

দ্বিতীয় স্তরে অন্য একটি টিম উচ্চতা ও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন। ৩য় স্তরে আরেক গ্রুপ পূর্বের সকল টিমের মতামতের আলোকে প্রাথমিক তালিকা হতে যোগ্যদের ডাটা এন্ট্রি করে অন-লাইনের মাধ্যমে আনসার ও ভিডিপি সদর দপ্তরের প্রেরণ করেন।

আনসার ও ভিডিপি সদর দপ্তর এন্ট্রিকৃত ডাটা চুড়ান্তভাবে পরীক্ষা করে প্রাথমিক যোগ্য বিবেচিত বাছাইকৃতদেরকে ১৬ নভেম্বর নির্ধারিত সময়ে রংপুর মাহিগঞ্জ আনসার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে লিখিত পরীক্ষা ও সাক্ষাতকারের জন্য মোবাইলে এসএমএস প্রেরণের মাধ্যমে অবগত করেন।

এসএমএস প্রাপ্ত সদস্যগণের রংপুর মাহিগঞ্জ আনসার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে লিখিত পরীক্ষা ও সাক্ষাতকার অনুষ্ঠিত হয়। রংপুর বিভাগের ৮টি জেলা ৩৬৫ জন প্রশিক্ষণার্থীর বিপরীতে ৭১৪৪ জন প্রশিক্ষণ গ্রহণে ইচ্ছুক ব্যক্তি অন লাইনে আবেদন করেন।

দিনাজপুর জেলার প্রশিক্ষণার্থীর কোটা ৬৭ জন, আবেদনকারীর সংখ্যা ১০৭২ জন এবং প্রাথমিকভাবে বাছাইয়ের সংখ্যা ১১৬ জন; ঠাকুরগাঁওয়ের কোটা ৩২ জন, আবেদনকারী ৫০০ জন, প্রাথমিক বাছাই ৮৫ জন; রংপুরের কোটা ৬৪ জন, আবেদনকারী ১১৭১ জন, প্রাথমিক বাছাই ৯০ জন, পঞ্চগড়ের কোটা ৩০ জন, আবেদনকারী ৫৬৪ জন, প্রাথমিক বাছাই ৯৭ জন; লালমনিরহাটের কোটা ৩০জন, আবেদনকারী ৭৩৫ জন, প্রাথমিক বাছাই ৯২জন; নীলফামারীর কোটা ৪১ জন, আবেদনকারী ৬৪৬ জন, প্রাথমিক বাছাই ১২১ জন; গাইবান্ধার কোটা ৫৫জন, আবেদনকারী ১০৪২ জন, প্রাথমিক বাছাই ১১৮ জন এবং কুড়িগ্রামের কোটা ৪৬জন, আবেদনকারী ১৪১৪ জন, প্রাথমিক বাছাই ১৪১ জন।

উক্ত প্রশিক্ষণ গ্রহণ শেষে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীগণ দেশে প্রয়োজনের জাতীয় ইস্যূতে অঙ্গীভূত আনসার হিসাবে কাজ করবেন, সেই সাথে বিভিন্ন আনসার গার্ডে ৩ বছর মেয়াদে অঙ্গীভূত আনসার হিসাবে চাকুরী করতে পারবেন। এছাড়া তারা সরকারী চাকুরীতে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণী পদে ১০% কোটা সুবিধা পাবেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

কিউএনবি /রেশমা/১৭ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং/রাত ১:০৪