২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | বিকাল ৫:২৩

চিকিৎসা দেয়ার পুরস্কার যদি এই হয়,তাহলে কেন চিকিৎসা দিবো?

আজ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিসিইউ তে কার্ডিয়াক এরেস্টে এক রোগী মারা যাবার পরিপ্রেক্ষিতে রোগীর লোকজন সিসিইউতে ভাংচুর করে,দুই চিকিৎসক কে মারধর করে,হাত ভেংগে দেয়,নারী চিকিৎসককে কাচ দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করে এবং কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ওয়াদুদ ক্লাসে ঢুকে মারধরের চেষ্টা করে। এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা কালে চার জন আনসার সদস্য রক্তাক্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তারপর রোগীর লোক জরুরি বিভাগেও চিকিৎসক এর গায়ে হাত তোলে এবং সরকারি জিনিসপত্র ভাংচুর করে বলে জানাযায়।

 

এই রোগীকে আজ ডাঃ ওয়াদুদ কয়েকবার দেখেছেন এবং রাউন্ডে ডাঃ সাহেব নিজে ২০ মিনিট ধরে বিভিন্ন কন্ডিশন নিয়ে আলোচনা করে চিকিৎসাপত্র দিয়েছেন এবং রোগীর রোগীকে কাউন্সিলিং করেছেন এবং দুইজন চিকিৎসক কে দায়িত্ব দিয়েছিলেন রোগীকে মনিটর করার জন্য। বলে জানান,চিকিৎসকরা ।

চিকিৎসকরা নিজেদের সবটুকু চেষ্টা করেও রোগী বাঁচাতে না পেরে, বিপরীতে পেয়েছেন মাইর।
এমতাবস্থায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, চিকিৎসক নেত্রীবৃন্দ, মধ্যম সারির চিকিৎসক এবং ইন্টার্নদের নিয়ে দফায় দফায় আলোচনা চলছে।কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তার দাবী জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

 

যথা সময়ে নেয়া প্রতিবাদ এবং কর্মসূচি জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ।আপাতত হাসপাতালের পরিচালক মামলা দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন এবংদুই দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।