১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ২:০৪

সিরাজগঞ্জে ১৭ জেলের কারাদণ্ড

 

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সিরাজগঞ্জের চৌহালী যমুনায় ইলিশ মাছ ধরার অপরাধে ১৭ জেলেকে আটক করে তাদের প্রত্যেককে ৭ দিন করে কারাদ- দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় ২৪ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ৪ মন মাছ জব্দ করা হয়েছে।
রোববার রাতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট (ভুমি) ও ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক আনিসুর রহমান এই করাদ- প্রদান করেন।


চৌহালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদেকুর রহমান জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ভ্রাম্যমান আদালত রোববার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত যমুনা নদীর উমারপুর, খাষকাউলিয়া, খাষপুখুরিয়া, ঘোরজান, বাঘুটিয়া ইউনিয়ন জুড়ে যমুনায় অভিযান চালায়।


এসময় মাছ ধরা অবস্থায় গোষাইবাড়ি গ্রামের মোতালেবের  ছেলে  রোশনাই (৩০), মিটুয়ানী গ্রামের আজিজের ছেলে বাহারুল (৪২), আটাপাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে আলামিন (১৮), খাষকাউলিয়া গ্রামের কাদেরের ছেলে আবু বক্কার (৬৫), বেল্লাল মন্ডলের ছেলে রহিজ উদ্দিন (২৫), মানিকগঞ্জের দৌলতপুরের চরকাটারী গ্রামের আওয়াল মোল্লার ছেলে আনোয়ার (৪৪), বাবর আলীর মোল্লার ছেলে সাইদুল (২৯), আমদ আলীর ছেলে মানু মিয়া (৩০), জয়েদ আলীর ছেলে বক্কর (২২), বাছামারা গ্রামের শাজাহান আলীর ছেলে করিম (১৮), চরকাটারী গ্রামের রহমালির পুত্র বাবুল (৪৫), পাবনার বেড়ার মহনগঞ্জ গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে বাবুল (৩৫), ওয়াজ মন্ডলের ছেলে ফজলাল (৩০), শাহজাদপুরের টারুটিয়া গ্রামের ফজর আলীর ছেলে রহম আলী (৬৫), বানতিয়ার গ্রামের মোকদম বেপারীর ছেলে নুরুজ্জামান (১৮), ইউছুফ আলীর ছেলে বাবু (১৮), ছোট চান তারা গ্রামের কুরান শেখের ছেলে বকুল (২৭) সহ ২৪ হাজার মিটার জাল আটক করা হয়। পরে আটককৃত জেলেদের প্রত্যেককে ৭ দিন করে কারাদন্ড এবং জালগুলো পুড়িয়ে ফেলা হয়।


উদ্ধারকৃত ৪ মন ইলিশ মাছ বিভিন্ন মাদ্রসায় ও এতিম খানায় বিতরণ করা হয়।
এসময় চৌহালী থানার ওসি আকরাম হোসেন, উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের ক্ষেত্র সহকারী  শফিকুল ইসলাম, কর্মকর্তা আবুল হাশেম উপস্থিত ছিলেন।

কিউএনবি /রিয়াদ /১৬ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং /দুপুর ১২:৫৩