১৬ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | রাত ৮:২৫

জয়পুরহাটের কালাইয়ের ১০টি হিমাগার থেকে পুলিশের আলু সংগ্রহ

 

 

মিজানুর রহমান মিন্টু,জয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাটের কালাই থানা পুলিশ বন্যার্তদের সহায়তায় উপজেলার ১০টি হিমাগার থেকে প্রায় দুই লাখ টাকা মূল্যের অন্তত দেড়শ’ বস্তা আলু সংগ্রহ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভিন্ন কৌশলে পুলিশের এমন কা-ে বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।আওয়ামী লীগ নের্তৃবৃন্দের অনুরোধ ও পরামর্শে হিমাগারগুলো থেকে এ আলু সংগ্রহ করা হয়েছে- পুলিশ এ দাবি করলেও কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের নের্তৃবৃন্দ তা অস্বীকার করেছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, উপজেলার বিভিন্ন হিমাগার থেকে ১০ থেকে ১৮ বস্তা করে অন্তত দেড়শ’ বস্তা আলু সংগ্রহ করা হয়। এ তালিকায় সালামিন কলিং ফুড হিমাগার থেকে ১০ বস্তা, আরবি স্পেশালাইজড হিমাগার থেকে ১৮ বস্তা, নরওয়েস্ট হিমাগার থেকে ১০ বস্তা, এম ইসরাত হিমাগার থেকে ১০ বস্তাসহ উপজেলার মোট ১০টি আলুর হিমাগার থেকে চলতি মাসের ১৯ থেকে ২১ আগস্টের মধ্যে কালাই থানার পুলিশ সদস্যরা মিনি ট্রাকযোগে এ আলু সংগ্রহ করেন।

জাত ভেদে ৮৪ কেজি ওজনের প্রতিটি আলুর বস্তার বাজার মূল্য ১ হাজার ২শ’ থেকে ১ হাজার ৪শ’ টাকা পর্যন্ত বলে জানা গেছে। সে হিসাবে দেড়শ’ বস্তা আলুর গড় মূল্য দাড়ায় প্রায় দু’লাখ টাকা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে হিমাগারগুলোর কর্তৃপক্ষগন জানান, বন্যা দুর্গত এলাকায় ত্রাণ বিতরণের নামে প্রতিটি হিমাগার থেকে কালাই থানার পুলিশ ১০ থেকে ১৫ বস্তা আলু সংগ্রহ করে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কালাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুরুজ্জামান চৌধূরী সাংবাদিকদের জানান, বন্যার্তদের সহায়তার জন্য স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের অনুরোধে উপজেলার ১০টি হিমাগার থেকে ১শ’ ১০ বস্তা আলু সংগ্রহ করা হয়েছে।

কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র খন্দকার হালিমূল আলম জন জানান, ‘হিমাগারগুলো থেকে ত্রাণের জন্য পুলিশকে আলু সংগ্রহ কারর অনুরোধ করা দূরের কথা, এ বিষয়টিই তার অজানা’।

জয়পুরহাট সুপার রশীদুল হাসান জানান, জেলায় পুলিশের পক্ষ থেকে বন্যা কবলিত মোট ১’শ ২৫ জনের প্রত্যেককে ৫ কেজি চাল ও ৫ কেজি আলু বিতরণ করা হয়েছে। সে হিসাবে মোট সাড়ে ৭ বস্তা আলু বিতরন করা হয়েছে বলে তিনি আরও জানান, পুলিশ সুপারসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের স্বেচ্ছা অর্থায়নে ত্রাণের সেই আলু সংগ্রহ করা হয়েছে। কোন হিমাগার থেকে আলু সংগ্রহ করা হয়নি বা অর্থ নেওয়া হয়নি। কোন পুলিশ সদস্য এ ধরণের কাজের সাথে জড়িত থাকলে, খতিয়ে দেখে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

কিউএনবি/রেশমা/৩০শে আগস্ট, ২০১৭ ইং/বিকাল ৩:৩৩