১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | দুপুর ২:৪৮

কিশোরীকে গণধর্ষণ: দুই যুবলীগ নেতা আটক

 

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে কিশোরী (১৬) গণধর্ষণের ঘটনায় যুবলীগের দুই নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৩ আগষ্ট) বেলা ১২টার দিকে হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কে মহিষলুটি মাছের আড়ৎ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তবে ধর্ষণের ঘটনার আগমুহূর্তে নিখোঁজ হওয়া ধর্ষিতার ছোট ভাই নাঈম (১০) বুধবার (২৩ আগস্ট) দুপুর পর্যন্তও উদ্ধার হয়নি।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের সাকেয়াদিগি গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের তথ্য বিষয়ক সম্পাদক মহির উদ্দিন এবং ওই গ্রামেরই আবু তালেবের ছেলে ও ৬নং ওয়ার্ড যুবলীগের সহ-সভাপতি আনিসুর রহমান আনিস।

তাড়াশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফজলে আশিক গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই ধর্ষণের ঘটনায় নির্যাতিত কিশোরী নিজেই বাদী হয়ে মহির ও আনিসের নামে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। বুধবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে মহিষলুটি এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বিকেলে নির্যাতিত কিশোরীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে। তবে ঘটনার সময় তার ছোট ভাই (১০) নিখোঁজ হয়েছে দাবী করলেও আমরা তাকে এখনও খুঁজে পাইনি।

মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে মহিষলুটি-নওগা আঞ্চলিক সড়কের বিদ্যাধর গ্রামের একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে ওই কিশোরীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে সে অভিযোগ করেছে। সে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের রানীগ্রামের বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) রাতে নির্যাতিত কিশোরী সাংবাদিকদের জানায়, ৩ দিন আগে ছোট ভাইকে নিয়ে তাড়াশের মান্নান নগর এলাকায় বড় বোনের বাড়িতে আসে সে। মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) বিকেলে দু’ভাই-বোন চলনবিল দেখতে মহিষলুটি আসে তারা। পথে আনিসুর রহমান নামে তার দুলাভাইয়ের এক বন্ধু কৌশলে ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সায় তাদের তুলে নিয়ে বিদ্যাধর এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখে। সন্ধ্যার পর পরিত্যক্ত ওই বাড়ি থেকে ছোট ভাইকে তারা অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যায়। এরপর রাত সাড়ে ৮টার দিকে আনিসুর ও তার বন্ধু মহির এসে দুজন মিলে জোরপূর্বক ধর্ষন করে আমাকে। চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন আসতে শুরু করলে ওই দুজন পালিয়ে যায় বলে জানান নির্যাতিত এই কিশোরী।

নওগাঁ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কোরবান আলী জানান, খবর পেয়ে তারা মেয়েটিকে উদ্ধার করে মহিষলুটি আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে রেখে থানায় সংবাদ দেন। পরে পুলিশ এসে মেয়েটিকে নিয়ে যায়। তবে মেয়েটির ভাইকে তারা ঘটনাস্থলে পাইনি।

 

কিউএনবি/রিয়াদ /২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং/বিকাল ৩:২৭