১৬ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ২রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ভোর ৫:০৭

ভান্ডারিয়ায় এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দূর্ণীতির অভিযোগ

পিরোজপুর থেকে মো. মামুন হোসেন: উপজেলার পশারীবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. হামিদ সিকদারের বিরুদ্ধে দূর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে দূর্নীতি ও অনিয়মের প্রমান পেয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি উক্ত প্রধান শিক্ষককে শোকজ করেন। শোকজের জবাব না দিয়ে প্রধান শিক্ষক নিজের অনিয়ম আড়াল করতে কমিটির ৫ সদস্যকে নিয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো.কায়সার হোসেন মালকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পশারীবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. হামিদ সিকদার জেলা পরিষদেও দুবারের বরাদ্দকৃত তিন লক্ষ টাকার নামমাত্র কাজ করে বরাদ্দ টাকা আত্মসাৎ করেন। এছাড়া বিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিষয়ের সহকারী শিক্ষক অনিল চন্দ্র হাওলাদারকে কৃষি শিক্ষক সাজিয়ে সমাজ বিজ্ঞান পদ শূন্য দেখিয়ে উক্ত পদে প্রধান শিক্ষকরে মেয়েকে অবৈধ পন্থায় নিয়োগ দেন।

অপর দিকে সহকারী শিক্ষক মৃনাল কান্তির ৭ বছর প্রবাসে থাকার পর তাকে পুনরায় নিয়োগ প্রদান করেন এবং কর্মবিরতির সময়কাল হিসেব করে অবৈধভাবে টাইম স্কেল প্রদানসহ ওই ৭ বছরের অভিজ্ঞতা দেখিয়ে অত্র বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রদান করেন উক্ত প্রধান শিক্ষক  আ. হামিদ সিকদার। এসব ঘটনায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো.কায়সার হোসেন মালকার প্রধান শিক্ষককে  শোকজ করেছেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক আ. হামিদ সিকদার জানান, জেলা পরিষদের টাকা কোন প্রকার আত্মসাত করেনি, ম্যানেজিং কমিটি কিভাবে শোকজ দিবে। তিনি ম্যানেজিং কমিটিকে মৃত্যু বলে অবহিত করেন এবং তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ তিনি অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষক মৃনাল কান্তির কাছে জানতে চাইলে তিনি সেলফোনে বলেন, এ বিষয় জেনে সাংবাদিকদের কাজকি বলে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. কায়সার হোসেন মালকার অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দূর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কুইক নিউজ বিডি.কম/এএম/০৯.০৫.২০১৬/১৯:০৮