১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | সন্ধ্যা ৬:১৮

স্বামীকে আটকে রেখে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষিকাকে দলবেঁধে গণধর্ষণ

 

স্বামীকে আটকে রেখে শ্রেণিকক্ষে এক শিক্ষিকাকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি বেতাগী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বরগুনা জেলার বেতাগী এলাকার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার (১৮ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে ওই শিক্ষিকাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে বেতাগী থানায় ছয়জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই শিক্ষিকা।

এ মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, বেতাগীর হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা গ্রামের মো. হিরন বিশ্বাসের ছেলে সুমন বিশ্বাস (৩৫), আব্দুল বারেক মিয়ার ছেলে মো. রাসেল (২৪), আ. কুদ্দুস কাজীর ছেলে সুমন কাজী (৩০), মো. সুলতান হোসেনের ছেলে মো. রবিউল (১৮), আ. রহমানের ছেলে মো. হাসান (২৫) ও মো. আবদুর রহমান হাওলাদারের ছেলে মো. জুয়েল (৩০)।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বেতাগী উপজেলার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক সহকারী শিক্ষকা ও তার স্বামী ভারতের পূর্ব মোদেনীপুর জেলার নন্দী গ্রামে বাসিন্দা বৃহাস্পতিবার স্কুল ছুটির পর বিদ্যালয়ে বসে কথা বলছিলেন। তাদের কথোপকথন দেখে অভিযুক্তরা স্কুলে প্রবেশ করতে চাইলে ওই শিক্ষিকা ভয়ে স্কুলের প্রধান দরজা তালা বন্ধ করে দেন।

এসময় অভিযুক্তরা তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে তার স্বামীকে এলোপাথারী মারধর করেন। পরে তার স্বামীকে স্কুলের একটি কক্ষে আটকে রেখে অপর একটি কক্ষে ওই শিক্ষিকাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মামুন-অর-রশিদ জানান, ভুক্তভোগী ওই শিক্ষিকা মামলা করেছেন। তার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

 

কিউএনবি/রিয়াদ /১৮ই আগস্ট, ২০১৭ ইং/বিকাল ৪:০২